avertisements
Text

রাশেদুল ইসলাম

নিজেকে অভিজাত মনে হয়

প্রকাশ: ০৮:৫৫ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর,শনিবার,২০২০ | আপডেট: ০১:৪৯ এএম, ১ নভেম্বর,রবিবার,২০২০

Text

আমি রাজধানী ঢাকার বাসিন্দা । ইস্কাটনে থাকি । আগে মোহাম্মদপুরে ছিলাম । মহানগরীর মোহাম্মদপুর একটা মিশ্র জনপদ এলাকা । সেখানে টোকিও স্কয়ারের মত বিলাসবহুল বিপনীবিতান যেমন আছে; সেই বিপনীবিতানের সামনে শ্রমজীবী মানুষের ব্যাপক কোলাহলও আছে । রাস্তায় অত্যাধুনিক বিএমডব্লিও গাড়ি যেমন আছে; একইসাথে শ্রমিকের ঘামঝরানো ঠেলাগাড়ি, রিক্সা বা রিক্সাভ্যানও আছে । মানুষে মানুষে হাজার ব্যবধান থাকলেও, সেখানে সকলে একসাথে বসবাসের প্রানান্তকার একটা চেষ্টা আছে । কিন্তু ইস্কাটনের অবস্থা ভিন্ন । এখানে একটি সুউচ্চ বহুতল ভবনের বারান্দায় দাঁড়িয়ে ঢাকা শহরকে আমার হংকং বা সিঙ্গাপুর মনে হয় । এই শহরে যে দিনমজুর ও শ্রমিক শ্রেণির মানুষও আছে -এখান থেকে তা বোঝার উপায় নেই । তাই, আলোঝলমল মহানগরীর দিকে তাকিয়ে আজকাল নিজেকে আমার কেমন যেন অভিজাত মনে হয় । 

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে রমনা পার্ক এখন বন্ধ । তাই পার্কসংলগ্ন মিন্টো রোড, বেইলী রোড, হেয়ার রোড আমার প্রাতঃভ্রমণ কেন্দ্র । এখানে আছে রাস্তার দুপাশে সারিসারি বৃক্ষরাজি, সবুজের সমারোহ, আর বিভিন্ন সুরের পাখির কাকলি । অনুপম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরা নৈসর্গিক এই দৃশ্যে আমার মনে হয় স্বর্গের বাগানে আছি যেন । প্রাতঃভ্রমণে নিজেকে আমার কোন এক ঐতিহাসিক নাটকের নায়ক মনে হয় । আমি আবেগ আবিষ্ট হয়ে হাঁটতে থাকি । 

বাস্তবে ইতিহাস বা ঐতিহাসিক ঐতিহ্যে আমাদের তেমন কোন শ্রদ্ধা বা ভালবাসা নেই । তাইতো ‘মিন্টো রোড’ এর দেওয়ালে ‘মিন্টু রোড’ লেখা হয়েছে । মনে হয় পাশের বাড়ির কোন এক মিন্টুর নামে রাস্তাটির নামকরণ করা হয় । ইংরেজ লর্ড মিন্টো  যে ১৯০৫ থেকে ১৯১০ সাল পর্যন্ত ব্রিটিশ ভারতের বড়লাট ছিলেন- এই মিন্টু নাম দেখে তা বোঝার উপায় নেই । আমাদের ইতিহাস ঐতিহ্যের প্রতি শ্রদ্ধা না থাকার কারণে ভারতের জয়পুর এবং পূর্ববাংলার প্রাক্তন রাজধানি সোনারগাঁর মধ্যে বিস্তর ব্যবধান । একই শৈল্পিক কারুকার্যে নির্মিত ভারতের জয়পুর এখন বিশ্ব পর্যটক নন্দিত ‘পিঙ্ক সিটি’ । আর বাঙ্গালির শৌর্যবীর্যে খ্যাত ঈসাখাঁর রাজধানী সোনারগাঁ জরাজীর্ণ ইটের প্রাচীন ঐতিহ্যের একটি ধ্বংসস্তূপ মাত্র ।  

আমি বোধহয় বিষয়ের বাইরে চলে গেছি । বলছিলাম আমার প্রাতঃভ্রমণের কথা । মিন্টো রোড, হেয়ার রোড বা বেইলী রোডের মত জায়গায় ইংরেজ আমলে আমার মত শ্যামলা মানুষের হাঁটার কোন অধিকার ছিল না । সুইপার, দারোয়ান বা বড়জোর এদেশীয় বাবুর্চিরা এই এলাকায় থাকতে পারত - তা শুধু সাদাবর্ণের অভিজাত ইংরেজদের একান্ত প্রয়োজনে । ঢাকাসহ পূর্ববাংলা কলোনি রাজ্যের দণ্ডমুণ্ডের প্রায় সকল ইংরেজ কর্মকর্তা এখানে থাকতেন । তবে, তাঁরা পূর্ববাংলার ভাগ্যনিয়ন্তা হলেও সাধারণ মানুষের সাথে তাঁদের কোন সম্পর্ক ছিল না ।  

১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর এ দৃশ্যের পালাবদল হয় । ইংরেজিভাষী ইংরেজদের জায়গায় আসেন উর্দুভাষী পশ্চিম পাকিস্তানিরা । তবে,  উল্লেখ্য যে, ১৯২১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা সূত্রে  অভিজাত শ্রেণির সংজ্ঞায় বেশ পরিবর্তন আসে । সে কারণে  অনেক বাঙ্গালি অফিসার এখানে বসবাসের সুযোগ পান । 

১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর মিন্টো রোড এবং তৎসংলগ্ন এলাকা মন্ত্রিপাড়া নামে পরিচিতি পায় । তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমানেও রাষ্ট্রের সামগ্রিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার সাথে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের একটি বড় অংশ এই এলাকায় থাকেন ।  

আমি রমনা পার্কের সীমানা প্রাচীর ঘেঁষে দাঁড়িয়ে । আমার সামনে রাস্তার ওপাশে মিনটো রোডের বিলাস বহুল মন্ত্রিপাড়া । রাস্তার দুপাশে শতবর্ষের সাক্ষী সারি সারি বৃক্ষরাজি । পাখির কাকলী আর অনুপম সৌন্দর্যে ভরা এই নির্জন প্রভাত আমাকে প্রশ্ন করে, ‘শুধু কি কপালগুনে এই অভিজাত এলাকায় থাকা যায়’ ? 
 
(চলবে)
 
ইস্কাটন, ঢাকা । ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ।

বিষয়:
avertisements
৭৪ বছরে পা দিলেন সবার প্রিয় বাকের ভাই
৭৪ বছরে পা দিলেন সবার প্রিয় বাকের ভাই
জি কে শামীমের গোপন জামিন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে দুদকে তলব
জি কে শামীমের গোপন জামিন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে দুদকে তলব
রুটি বিক্রেতা থেকে যুদ্ধংদেহী প্রেসিডেন্ট এরদোগান
রুটি বিক্রেতা থেকে যুদ্ধংদেহী প্রেসিডেন্ট এরদোগান
হাজী সেলিম ও তার ছেলের ‘অবৈধ সম্পদের’ তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক
হাজী সেলিম ও তার ছেলের ‘অবৈধ সম্পদের’ তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক
ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা করলে সেটা নিশ্চয় আল্লাহর আরসে গৃহিত হবে: কাদের সিদ্দিকী
ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা করলে সেটা নিশ্চয় আল্লাহর আরসে গৃহিত হবে: কাদের সিদ্দিকী
প্যারিস ছেড়ে পালাচ্ছে মানুষ, রাস্তা ৭০০ কিমি লম্বা জ্যাম
প্যারিস ছেড়ে পালাচ্ছে মানুষ, রাস্তা ৭০০ কিমি লম্বা জ্যাম
বস্তিবাসীদের গ্রামে পাঠিয়ে খাবারের ব্যবস্থা করা হবে: প্রধানমন্ত্রী
বস্তিবাসীদের গ্রামে পাঠিয়ে খাবারের ব্যবস্থা করা হবে: প্রধানমন্ত্রী
‘হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও বিএনপিকে খুঁজে পাওয়া যায় না’
‘হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও বিএনপিকে খুঁজে পাওয়া যায় না’
ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের পক্ষ নিয়ে ভারতের নিন্দা প্রকাশ
ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের পক্ষ নিয়ে ভারতের নিন্দা প্রকাশ
ফরাসিদের শাস্তি দেয়ার অধিকার মুসলমানদের রয়েছে : মাহাথির
ফরাসিদের শাস্তি দেয়ার অধিকার মুসলমানদের রয়েছে : মাহাথির
কয়েদির পোশাকে সেই মিন্নির ছবি ভাইরাল!
কয়েদির পোশাকে সেই মিন্নির ছবি ভাইরাল!
বন্ধ হচ্ছে এমআরপি পাসপোর্ট
বন্ধ হচ্ছে এমআরপি পাসপোর্ট
ভারতীয় জেলেদের পাথর দিয়ে পেটাল শ্রীলংকার নৌবাহিনী!
ভারতীয় জেলেদের পাথর দিয়ে পেটাল শ্রীলংকার নৌবাহিনী!
ইসলামপন্থি সন্ত্রাসের কাছে হার মানবে না ফ্রান্স: ম্যাক্রোঁ
ইসলামপন্থি সন্ত্রাসের কাছে হার মানবে না ফ্রান্স: ম্যাক্রোঁ
বঙ্গোপসাগরে ভারতের মিসাইলের আঘাতে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজ
বঙ্গোপসাগরে ভারতের মিসাইলের আঘাতে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজ
সিডনিতে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনী খুন
সিডনিতে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনী খুন
সিডনির মিউচুয়াল প্রপার্টি গ্রুপের ৪৯% শেয়ার কিনেছেন চাইনিজ কনস্ট্রাকশন গ্রুপ রিশল্যান্ড প্রজেক্ট কোং
সিডনির মিউচুয়াল প্রপার্টি গ্রুপের ৪৯% শেয়ার কিনেছেন চাইনিজ কনস্ট্রাকশন গ্রুপ রিশল্যান্ড প্রজেক্ট কোং
সিডনি থেকে হারিয়ে যাওয়া বাংলাদেশী ছাত্রের সন্ধান ১৬ বছরেও মেলেনি 
সিডনি থেকে হারিয়ে যাওয়া বাংলাদেশী ছাত্রের সন্ধান ১৬ বছরেও মেলেনি 
নামাজ চলাকালীন সময়ে সিডনির ওবার্নের গ্যাল্লিপোলি মসজিদে আক্রমন
নামাজ চলাকালীন সময়ে সিডনির ওবার্নের গ্যাল্লিপোলি মসজিদে আক্রমন
অস্ট্রেলিয়ায় চালু হতে যাচ্ছে প্রথম পূর্ণাঙ্গ শরিয়াহভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক
অস্ট্রেলিয়ায় চালু হতে যাচ্ছে প্রথম পূর্ণাঙ্গ শরিয়াহভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক
শেখ হাসিনার রাষ্ট্রে মাস্তানি চলবে না: সেলিম মাহমুদ
শেখ হাসিনার রাষ্ট্রে মাস্তানি চলবে না: সেলিম মাহমুদ
‘আই লাভ মুহাম্মদ’ লেখা মাস্ক পরে সংসদে এমপি
‘আই লাভ মুহাম্মদ’ লেখা মাস্ক পরে সংসদে এমপি
একজন মানুষের কত জমি দরকার ?
একজন মানুষের কত জমি দরকার ?
সিডনির বাঙালী পাড়া খ্যাত লাকেম্বায় করোনা সংক্রমন, সতর্কতা জারী
সিডনির বাঙালী পাড়া খ্যাত লাকেম্বায় করোনা সংক্রমন, সতর্কতা জারী
অক্সফোর্ডের করোনার ভ্যাকসিন বিরোধীতায় অস্ট্রেলিয়ার ইমাম ও আর্চবিশপ
অক্সফোর্ডের করোনার ভ্যাকসিন বিরোধীতায় অস্ট্রেলিয়ার ইমাম ও আর্চবিশপ
রবিবার থেকে সিডনিতে  শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সুপার লীগ টি ২০
রবিবার থেকে সিডনিতে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সুপার লীগ টি ২০
মালেকদের উত্থানে মদ ও কল গার্লদের ভূমিকা!
মালেকদের উত্থানে মদ ও কল গার্লদের ভূমিকা!
তৃতীয় বিয়ে করলেন অভিনেত্রী শমী কায়সার
তৃতীয় বিয়ে করলেন অভিনেত্রী শমী কায়সার
নিজেকে অভিজাত মনে হয়   (তিন) 
নিজেকে অভিজাত মনে হয় (তিন) 
ইউএনওর বাসভবনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে যা পাওয়া গেছে
ইউএনওর বাসভবনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে যা পাওয়া গেছে
avertisements
avertisements