avertisements

অস্ট্রেলিয়ান সেনার ভূয়া ছবি প্রকাশের ঘটনায় ক্ষমা চাইবে না চীন

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১০:১৬ পিএম, ৩ ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,২০২০ | আপডেট: ০৭:৪০ পিএম, ৬ মার্চ,শনিবার,২০২১

Text

ভূয়া ছবি প্রকাশের ঘটনায় ক্ষমা চাইতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে চীন। বিতর্কিত সেই ছবিতে দেখা যায়, আফগানিস্তানের শিশুর গলা কাটছে অস্ট্রেলিয়ার এক সেনা সদস্য। ছবি প্রকাশের ঘটনায় বেইজিং ক্ষমা না চেয়ে বলেছে, ক্ষমা চাইতে বলার চেয়ে ক্যানবেরার লজ্জিত হওয়া উচিত।

চীন আপত্তিকর ও দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে বলে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন ক্ষোভ প্রকাশ করে দেশটিকে ক্ষমা চাইতে বলেন। মরিসনের বক্তব্যের জেরে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চাংইং গত সোমবার জানান, ওই ঘটনায় ক্ষমা চাওয়ার দাবি না জানিয়ে অস্ট্রেলিয়ার লজ্জিত হওয়া উচিত। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হুয়া চাংইং আরো বলেন, আমার সহকর্মীর টুইটের তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে। এটা কেন? তারা কি মনে করে যে আফগান বেসামরিক নাগরিকদের নির্দয়ভাবে হত্যা করা ন্যায়সংগত? তবে এ জাতীয় নির্মম বর্বরতার নিন্দা নয় কেন?

তিনি আরো বলেন, আফগানিস্তানে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তাদের কিছু সেনা এ ধরনের বর্বর আচরণ করার ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ান সরকারের লজ্জা পাওয়া উচিত নয়?

এদিকে বেইজিংয়ের তরফ থেকে এ ধরনের ছবি প্রকাশের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডান। গত মঙ্গলবার তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, এ ধরনের ছবি ব্যবহারের বিষয়ে চীন সরকারের কাছে সরাসরি উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এটা অযৌক্তিক পোস্ট ছিল। এটা অবশ্যই আমাদের জন্য উদ্বেগের। বিষয়টি নিয়ে আমাদের উদ্বেগের বিষয়টি সরাসরি প্রকাশ করেছি।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান গত সোমবার টুইটারে ছবিটি পোস্ট করেন। সেই ছবিতে দেখা যায়, রক্তমাখা ছুরি দিয়ে আফগান শিশুর গলা কাটছেন অস্ট্রেলিয়ার সেনা সদস্য।

ঝাও লিজিয়ান বলেন, আমরা এ ধরনের কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাই। এ ব্যাপারে দায়ীদের জবাবদিহি করারও আহ্বান জানান তিনি।

যদিও ছবিটি ভুয়া বলে অভিযোগ রয়েছে। হেরাল্ড এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বেইজিংপন্থী শিল্পী উহেকিলিন ছবিটি এঁকেছেন।  গত বছর হংকংয়ে বিক্ষোভের সময় বেইজিংপন্থী ছবির জন্য তিনি আলোচনায় আসেন।

আফগানিস্তানে অস্ট্রেলিয়ার স্পেশাল ফোর্সের সদস্যরা ৩৯ জনকে হত্যার ঘটনা সামনে আসার পর চরম সমালোচনা শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে ছবিটি পোস্ট করার জেরে তোলপাড় শুরু হয়।

ক্যানবেরা এবং বেইজিংয়ের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে চলতি বছরের এপ্রিলে। ওই সময় বেইজিংয়ের সঙ্গে পরামর্শ না করে করোনাভাইরাসের উৎস সম্পর্কে আন্তর্জাতিক তদন্তের চাপ দেয় অস্ট্রেলিয়া।

ভারতের সঙ্গে সম্প্রতি নৌ মহড়ায় অংশ নেওয়ার কারণেও অস্ট্রেলিয়ার ওপর চটেছে বেইজিং।

সূত্র : এএনআই, জি ফাইভ।

avertisements