avertisements

দরপত্র ছাড়াই সাতক্ষীরার হাজী নাসিরউদ্দিন কলেজের গাছ কেটে সাবাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ১২:৪৩ পিএম, ১ নভেম্বর,রবিবার,২০২০ | আপডেট: ০২:৪৯ এএম, ২৭ নভেম্বর,শুক্রবার,২০২০

Text

সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলায় হাজী নাসিরউদ্দিন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল আলীম ও কয়েকজন দূর্নীতিবাজ জাল সনদধারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনুমতি ছাড়াই ঝড়ে পড়ে যাওয়া বেশ কিছু গাছ কেটে বিক্রি করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্হানীয় প্রভাবশালীদের যোগসাজশে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন না মেনেই গত ১২/০৯/২০২০ ইং তারিখে রেইন্ট্রি সহ বিভিন্ন প্রজাতির বেশ কিছু  গাছ  যার আনুমানিক বাজার মূল্য ৩০০০০০/ =(তিন লক্ষ টাকা) হলেও  কথিত দরপত্রের নামে মাত্র  ৬০০০০/ = (ষাট হাজার) টাকায়  কেটে গোপনে বিক্রি করে টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

কি কারণে গাছ কেটে বিক্রি করা হয়েছে তা জানেন না  দরপত্র  কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,  উপজেলা   শিক্ষা অফিসার, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও কলেজের অধিকাংশ শিক্ষক , কর্মকর্তা বা প্রতিষ্ঠাতা দাতা সদস্যরা। ফলে এলাকাজুড়ে শুরু হয়েছে সমালোচনার ঝড়।

Previous Next

সরকারী পরিপত্র অনুযায়ী কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তি বিক্রি করার আগে তা পরিচালনা কমিটির সম্মতিক্রমে রেজুলেশন লিখতে হয়। এরপর উপজেলা শিক্ষা অফিস ও নির্বাহী অফিসারের নিকট তার অনুলিপি জমাদানপুর্বক তাদের অনুমতি ক্রমে নিলামে বিক্রি করার নিয়ম থাকলেও এখানে তা মানা হয়নি।


পরে এলাকাবাসী  কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ করে। অভিযোগ খতিয়ে  দেখতে কলারোয়া উপজেলা  তথ্য ও প্রযুক্তি অধিদপ্তরের সহকারী  প্রোগ্রামার মোঃ  মোতাহার হোসেনকে দিয়ে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু এলাকবাসী বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরেছে দূর্নীতিবাজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ তদন্ত প্রতিবেদন নিজের পক্ষে নিতে তদন্তকারী মোতাহার হোসেনকে মোটা অংকের ঘুষ প্রদান করেছে। ফলে এলাকাবাসীর আংশকা গাছ  বিক্রি নিয়ে মোঃ  মোতাহার হোসেনের প্রতিবেদন হবে পক্ষপাত দুষ্ট  দূর্নীতিবাজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়মুক্তি। 

এলাকাবাসী বিষয়টি নিয়ে অধিকতর তদন্ত করে  দূর্নীতিবাজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবী জানিয়েছে।

আরও পড়ুন

avertisements