avertisements 2

বিয়ের মাত্র ২১ দিনে ‘হাসিখুশি’ ফাহিমা না ফেরার দেশে

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ২০ জানুয়ারী,শনিবার,২০২৪ | আপডেট: ০২:১৭ পিএম, ২৯ ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,২০২৪

Text

কুমিল্লার লালমাইয়ে বিয়ের মাত্র ২১ দিনের মাথায় ফাহিমা আক্তার (১৮) নামে এক প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) বিকালে উপজেলার বাগমারা উত্তর ইউপির দত্তপুর গ্রামের স্বামীর বাড়ি থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। আজ শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ। নিহত ফাহিমা আক্তার ওই গ্রামের সৌদিপ্রবাসী মেহেদী হাসান হৃদয়ের স্ত্রী। তিনি উপজেলার ভুলইন দক্ষিণ ইউপির গোসাইপুস্করনী গ্রামের মোস্তফা কামাল মজুমদারের মেয়ে।

নিহতের শ্বশুর বাড়ির লোকজন সূত্রে জানা যায়, মেহেদী হাসান গত দেড় বছর ধরে সৌদি আরব থেকে ফাহিমার সঙ্গে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। সেই সুবাদে উভয় পরিবারের সিদ্ধান্তে গত ২৯ ডিসেম্বর মোবাইল ফোনে তাদের বিয়ে হয়। এরপর থেকে প্রায় সময় ফাহিমা শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সর্বশেষ বুধবার সকালে বাপের বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়িতে আসেন ফাহিমা। সবার সঙ্গে খুব হাসিখুশি থাকতেন তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরেও পরিবারের সবার সঙ্গে একসাথে ভাত খান ফাহিমা। পরে নিজের ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে স্বামী মেহেদী হাসানের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলেন। বিকাল ৩টায় সময় তাকে ডাকাডাকি করা হয়। কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে ঘরের পেছনে গিয়ে থাই গ্লাস দিয়ে দেখা যায় ফাহিমা ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে আছে।

নিহতের বাবা মোস্তফা কামাল বলেন, আমার মেয়ের আত্মহত্যার ঘটনায় আমি থানায় লিখিত আবেদন করেছি। পুলিশ তদন্ত করে আত্মহত্যার সঠিক কারণ বের করুক। মোবাইল ফোনে বিয়ের ২১ দিনের মাথায় মেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে- এর কোনো কারণ আমি বুঝতে পারছি না।

লালমাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় নিহতের বাবা লিখিত অভিযোগ করেছেন। আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। তবে নিহতের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন মেলেনি।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2