avertisements 2

দুপুর থেকে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ, তাইওয়ানকে ক্রমশ ঘিরছে চিন! তেতে উঠছে উপমহাদেশীয় রাজনীতি

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ৫ আগস্ট,শুক্রবার,২০২২ | আপডেট: ১২:১০ পিএম, ১২ আগস্ট,শুক্রবার,২০২২

Text

দীর্ঘ আড়াই দশক ধরে ধিকধিক করে জ্বলছিল যে আগুন, একধাক্কায় তা কার্যত মশালে পরিণত হল। আমেরিকার হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির (Nancy Pelosi) তাইওয়ান সফর ঘিরে উপমহাদেশে কার্যতই ঘনিয়ে আসছে অশান্তির মেঘ (China-Taiwan Conflict)। কারণ এই মুহূর্তে তাইওয়ানকে কার্যত ঘিরে ফেলেছে চিন (People's Liberation Army/PLA)। ক্ষেপণাস্ত্র (Ballistic Missile), বায়ুসেনা, নৌবহর নিয়ে তাইওয়ানের জলসীমায় পৌঁছে গিয়েছে তারা। যে কোনও মুহূর্তে ড্রাগনবাহিনী হামলা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ন্যান্সির সফরের পরই তাইওয়ানের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে চিন!

বুধবারই তাইওয়ান সফর সেরে জাপান রওনা দেন ন্যান্সি। আর বৃহস্পতিবারই তাইওয়ানের উত্তর-পূর্ব এবং দক্ষিণ-পশ্চিম জলসীমা এলাকায় চিন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে বলে দাবি তাইওয়ান প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের। বিবৃতি প্রকাশ করে তারা জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা বেজে ৫৬ মিনিটে দেশের উত্তর-পূর্ব এবং দক্ষিণ—পশ্চিম জলসীমায় চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি একাধিক দোংফেং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (চিনা রকেট বাহিনীর হাতে থাকা স্বল্প থেকে মাঝারি দূরত্বের অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র) উৎক্ষেপণ করেছে। তাইওয়ান সেনা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে। দেশের প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি সক্রিয় রাখা হয়েছে। চিনের এই পদক্ষেপে আঞ্চলিক শান্তি এবং স্থিতিশীলতা লঙ্ঘিত হওয়ার মুখে বলে জানিয়েছে তাইওয়ান।

শুধু তাই নয়, তাইওয়ানের মূল ভূখণ্ডকে ঘিরে সামরিক মহড়াও শুরু করে দিয়েছে চিন। কমপক্ষে ছ’টি জায়গায় ড্রাগন বাহিনী সামরিক কার্যকলাপ চালাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। তাইওয়ানের উত্তর, দক্ষিণ-পশ্চিম এবং দক্ষিণ-পূর্বের জলপ্রণালী এবং আকাশসীমায় যুদ্ধের প্রশিক্ষণ এবং অনুশীলন শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে চিনের সরকারি সংবাদ সংস্থা চিনহুয়াও। তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইস্টার্ন থিয়েটার কম্যান্টের অধীনে, নৌসেনা, বায়ুসেনা, রকেট বাহিনীর যৌথ মহড়া চলছে। তাদের সহযোগিতা করছে চিনের সামরিক কৌশল বাহিনী। পৌঁছে গিয়েছে প্রয়োজনীয় রসদও।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2