avertisements

দাবানল থামাতে অস্ট্রেলিয়া-কানাডার সাহায্য চেয়েছে ক্যালিফোর্নিয়া

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১১:৩৪ এএম, ১ সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,২০২০ | আপডেট: ১০:২৫ এএম, ১৬ এপ্রিল,শুক্রবার,২০২১

Text

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ভয়াবহ দাবানল নিয়ন্ত্রণে অস্ট্রেলিয়া ও কানাডার সহযোগিতা চেয়েছেন অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর গ্যাভিন নিউসম। 

যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্য থেকে ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল নেভানোর জন্য সাহায্য পাঠানো হচ্ছে। দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দাবানল মোকাবিলায় অভ্যস্ত অস্ট্রেলিয়া ও কানাডার কাছেও সহায়তা চেয়েছেন অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর গ্যাভিন নিউসম।

ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল মোকাবিলায় ওরেগন, নিউ মেক্সিকো, টেক্সাসের মতো অঙ্গরাজ্যগুলোতে থেকে দমকলকর্মী, পর্যবেক্ষণ প্লেন, গাড়ি পাঠানো হচ্ছে। এরপরও অস্ট্রেলিয়া থেকে ‘বিশ্বসেরা দাবানল মোকাবিলা বাহিনী’ পাঠানোর অনুরোধ জানিয়েছেন গভর্নর নিউসম।

নিজেদের উপকরণ ও কর্মীবাহিনীতে দাবানল মোকাবিলা করা যাচ্ছে না বলে জানালেন তিনি, “দাবানলের ঘটনাগুলো আমাদের উপকরণ ও কর্মীবাহিনীর ওপর চাপ তৈরি করছে।”

শত শত দাবানলে জ্বলছে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য ও উত্তর ক্যালিফোর্নিয়া। অঙ্গরাজ্যের ইতিহাসে শুধু উত্তর ক্যালিফোর্নিয়াতেই শনিবার বড় কয়েকটি দাবানল দেখা গেছে। পুড়েছে তিন লাখ ১৪ হাজার একরের বেশি বনাঞ্চল। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ লাখ একর বনাঞ্চল পুড়ে গেছে। দাবানলে মারা গেছে অন্তত ৬ জন। 

অঙ্গরাজ্যটিতে এখনো ৫৮৫টি জায়গায় আগুন জ্বলছে। ইতোমধ্যেই প্রায় ১০ লাখ একরজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে দাবানল। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩ হাজারের বেশি দমকলকর্মী দিন রাত কাজ করে যাচ্ছেন।

ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তা বলেন, এখানকার অবস্থা ভয়াবহ। বিভিন্ন জায়গায় আমাদের সদস্যরা কাজ করছে। আমরা চেষ্টা করছি যাতে আগুন অন্য জায়গায় ছড়িয়ে পড়তে না পারে।

ক্যালিফোর্নিয়াকে বড় দুর্যোগপ্রবণ এলাকা ঘোষণা করতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গভর্নর নিউসম। পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ সানফ্রান্সিসকোর দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলে।

দাবানল নেভানোর কাছে থাকা দমকল বাহিনী’র কর্মীদের মধ্যে ৪৩ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। পুড়ে ছাই হয়ে গেছে হাজার হাজার বাড়িঘর। দাবানল থেকে বাঁচতে লাখ লাখ বাসিন্দাকে বাড়ি ছেড়ে নিরাপদে আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে।

এদিকে, এক সংবাদ সম্মেলনে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়া ও কানাডার সহযোগিতা চেয়েছেন অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর গ্যাভিন নিউসম।

গ্যাভিন নিউসম বলেন, আপনারা নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যান। দাবানলের ভয়াবহতা বোঝার চেষ্টা করুন। আগুন নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে দমকলকর্মী আনা হচ্ছে। এমনকি কানাডা ও অস্ট্রেলিয়ার সাথেও আমরা যোগাযোগ রাখছি। তাদের কাছে সাহায্য চাওয়া হয়েছে।

চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে ক্যালিফোর্নিয়ায় তাপমাত্রা ইতিহাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়। গত তিন দিনে সেখানে প্রায় ১২ হাজারের বেশি বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। আর এসব থেকেই দাবানলের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

বিষয়: দাবানল
avertisements