avertisements 2

খুলনায় প্রতিমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে ১৫ মিনিটে ৬ জনের পকেটমার

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ৪ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,২০২২ | আপডেট: ১২:৪৪ পিএম, ১২ আগস্ট,শুক্রবার,২০২২

Text

খুলনায় সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে মাত্র ১৫ মিনিটের ব্যবধানে ছয় জনের পকেট থেকে মানিব্যাগ, টাকা ও মোবাইল ফোন চুরির ঘটনা ঘটেছে।

গত মঙ্গলবার সকালে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বধ্যভূমি এলাকায় অভিনব কায়দায় এ পকেটমারের ঘটনা ঘটে। এদিকে, প্রতিমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে পকেটমারের ঘটনা পাইকগাছায় মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে কপিলমুনি বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। এ সময় সেখানে সংসদ সদস্য আখতারুজ্জামান বাবু, কপিলমুনি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কওসার আলী জোয়ার্দারসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রতিমন্ত্রী স্থান ত্যাগ করার পর অনেকে তাদের পকেটে হাত দিয়ে অবাক হন। কিছু সময়ের মধ্যে কপিলমুনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি যুগলকিশোর দের পকেট থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকা, সাংবাদিক তপন পালের ৫ হাজার টাকা, কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান কওসার আলী জোয়ার্দারের ৯ হাজার টাকা খোয়া গেছে। এ সময় কপিলমুনি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক রাজু ও উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমীরণ সাধুর মোবাইল ফোন খোয়া যায়।

এদিকে, সাংবাদিকদের ধারণ করা একাধিক ছবিতে দেখা যায়, মন্ত্রীর সামনে দাঁড়িয়ে থাকা খর্বাকৃতি মধ্য বয়স্ক মাস্ক পরা ব্যক্তি কপিলমুনি আওয়ামী লীগের সভাপতি যুগলকিশোর দের পাঞ্জাবির পকেটে কৌশলে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছেন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ সদস্য উপস্থিত থাকলেও পকেটমার সুকৌশলে তার কাজ করে যাচ্ছেন। স্থানীয়রা তাদের প্রতিক্রিয়ায় ঘটনাটিকে ‘ম্যারাথন পকেটমার’ বলে অভিহিত করেছেন।

কপিলমুনি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ভুক্তভোগী আব্দুর রাজ্জাক রাজু বলেন, প্রথমে তিনি ভেবেছিলেন তার মোবাইল ফোন ভিড়ের মাঝে হারিয়ে গেছে। তবে পরবর্তীকালে অন্যদের ঘটনা ও ছবি দেখে নিশ্চিত হয়েছেন, তার মোবাইল ফোনটিও পকেটমার হয়েছে। পাইকগাছা থানার ওসি জিয়াউর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সর্বোচ্চ ১৫-২০ মিনিটের মধ্যে ঘটনাটি ঘটেছে। এত ভিড়ে ঘটনা ঘটায় কেউ বুঝতে পারেনি।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2