avertisements 2

বিদেশে বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের বিষয়টি বানোয়াট : মোশাররফ

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ১৯ জানুয়ারী, বুধবার,২০২২ | আপডেট: ০৯:১৭ পিএম, ২০ মে,শুক্রবার,২০২২

Text

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশের জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই ক্ষমতাসীনরা লবিস্ট নিয়োগের ভিত্তিহীন ও বানোয়াট দায় বিএনপির ওপর চাপাচ্ছেন। তিনি বলেন, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও বানোয়াট।

আজ বুধবার দুপুরে শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় ড. মোশাররফ হোসেন বলেন, লবিস্ট নিয়োগের অভিযোগ ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। যখন আমেরিকা থেকে দেশের একটি সংস্থা এবং উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা এসেছে, তখন মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে নিজেদের অপকর্ম আড়াল করার চেষ্টা করছে ক্ষমতাসীনরা। 

মানবাধিকার লঙ্ঘন, ভোটাধিকার হরণ ও নিজেদের লুটপাট-লুণ্ঠন ধামাচাপা দিতেই আওয়ামী লীগ ১৪ বছর ধরে বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেছে। আর এখন তারাই দেশের জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই বানোয়াট বক্তব্য দিচ্ছে। আমাদের বক্তব্য পূর্ণাঙ্গভাবে একটি প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে জানাবো।  
এ সময় বিএনপির এই সিনিয়র নেতা আরও বলেন, আজকে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী। তিনি ক্ষমতায় এসে এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। এর আগে দেশে বাকশাল ছিল। বাকশালের হাত থেকে দেশকে বহুদলীয় গণতন্ত্র দিয়েছেন। তিনি আধুনিক স্বনির্ভর বাংলাদেশ গঠনে উনিশ দফা কর্মসূচি দিয়েছেন। আজকের বাংলাদেশের অর্থনীতি যে তিনটি খুঁটির ওপর দণ্ডায়মান, সে তিনটি খুঁটি জিয়াউর রহমান স্থাপন করে গেছেন।

তিনি বলেন, আজকে সবচেয়ে বেশি মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে আমাদের নেত্রী গণতন্ত্রের মাতা তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি। বানোয়াট মামলায় একটি নির্দেশিত রায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে খালেদা জিয়া কারাগারে ছিলেন। আজকে তিনি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। বিদেশে চিকিৎসা করতে যাওয়ার যে মানবিক অধিকার সেটা থেকেও তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এটাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় মানবাধিকার লঙ্ঘন।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া আমরা কোনো নির্বাচনে যাব না। সুতরাং নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আমাদের কোনো আগ্রহ নেই। শুধু তাই নয় আমরা নির্বাচনে যাবো না এবং প্রতিহত করবো।  

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক, মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালাম, সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি প্রমুখ।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2