avertisements 2

সন্তানের জন্য ওষুধ কিনতে যাওয়া মায়ের দেহ মিলল অজগরের পেটে, অতঃপর...

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ৩ জুলাই, বুধবার,২০২৪ | আপডেট: ১১:২৮ এএম, ১২ জুলাই,শুক্রবার,২০২৪

Text

মধ্য ইন্দোনেশিয়ায় সাপের পেটে মিলল নারীর মরদেহ। সাপটি ওই নারীকে পুরো গিলে ফেলেছিল। পরে সাপের পেট কেটে মরদেহ বের করা হয়। অঞ্চলটিতে এক মাসের মধ্যে এ নিয়ে দুটি অজগর হত্যার ঘটনা ঘটল।

স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে বুধবার এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গণমাধ্যমটি জানিয়েছে, সিরিয়াতি (৩৬) নামের ওই নারী স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে তার অসুস্থ সন্তানের জন্য ওষুধ কিনতে বাড়ি থেকে বের হন। এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ থাকায় আত্মীয়রা পুলিশকে অনুসন্ধান করতে অনুরোধ জানায়।

স্থানীয় পুলিশ প্রধান ইদুল জানান, সিরিয়াতির স্বামী আদিয়ানসা (৩০) দক্ষিণ সুলাওয়েসি প্রদেশের সিতেবা গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে ৫০০ মিটার দূরে তার জুতা ও প্যান্ট খুঁজে পান।

এর কিছু পথ দূরে তিনি একটি অজগর দেখতে পান। সাপটি তখনো জীবিত ছিল। অজগরটির পেট ‘খুব বড়’ দেখতে পেয়ে আদিয়ানসার সন্দেহ জাগে। তিনি সাপটির পেট কাটার জন্য গ্রামবাসীকে ডাকেন।
পরে সাপটির পেটে সিরিয়াতির দেহ দেখা যায় বলে জানান গ্রাম সচিব আইয়াং।

এএফপির তথ্য অনুসারে, এ ধরনের ঘটনা অত্যন্ত বিরল। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বেশ কয়েকজনকে অজগর খেয়ে ফেলার ঘটনা ঘটেছে। দক্ষিণ সুলাওয়েসির অন্য এক জেলায় গত মাসে একটি গোলবাহার জাতের অজগরের পেটে এক নারীর মরদেহ পাওয়া গিয়েছিল। এর আগে গত বছর একটি আট মিটার দৈর্ঘের অজগরকে হত্যা করা হয়। সেই সাপটি গ্রামের এক কৃষককে শ্বাসরোধ করে খেয়ে ফেলেছিল।

দক্ষিণ-পূর্ব সুলাওয়েসির মুনা শহরে ২০১৮ সালে এমন আরেকটি ঘটনা ঘটে। তখন ৫৪ বছর বয়সী এক নারীর মরদেহ সাত মিটার দৈর্ঘের একটি অজগরের পেটে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল। তার এক বছর আগে পশ্চিম সুলাওয়েসির একটি পামবাগানে চার মিটার দৈর্ঘের একটি অজগর এক কৃষকে গিলে ফেলেছিল।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2