avertisements 2

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের জমি পেলেন নারী ফুটবলার আঁখি

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ৯ জুন,বৃহস্পতিবার,২০২২ | আপডেট: ০২:০১ পিএম, ২৩ জুন,বৃহস্পতিবার,২০২২

Text

ছবি- সংগৃহীত

বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের সদস্য আঁখি খাতুনকে জমি উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৭ সালের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবল টুর্নামেন্টে গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন এই নারী ফুটবলার।

বসবাসের জন্য উপযুক্ত ঘর ছিল না আঁখির পরিবারের। সে লক্ষ্যে এই নারী ফুটবলারকে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে ৮ শতক জমি উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বসতবাড়ির জমি পেয়ে উল্লসিত আঁখির পরিবার-আত্মীয়স্বজনেরা।

গত ৪ জুন দুপুরে সিরাজগঞ্জ অফিসার্স ক্লাবে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আঁখির পরিবারের কাছে জমির দলিল হস্তান্তর করেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার।

এর আগেও আঁখির পরিবারকে বসতভিটা তৈরি করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে জমি উপহার দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার জন্য সে সময় দেওয়া ৩ শতক জমি পাননি এই নারী ফুটবলারের পরিবার।

তবে এবার আর সেই সমস্যার সম্মুখীন হবে না তার পরিবার, এমনটাই জানিয়েছেন সচিব কবির বিন আনোয়ার। এদিকে বর্তমানে জমিটি জলাশয়ের মধ্যে থাকলেও সরকারের পক্ষ থেকে এটা ব্যবহার উপযোগী করে তবেই আঁখির পরিবারকে দেওয়া হবে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক ফারুক আহম্মেদ।

আঁখির দলিল হস্তান্তরের দিনে সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেন, ‘জাতীয় দলে আঁখির অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী তার পরিবারের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে তিন বছর আগে জমি দেওয়া হয়েছিল। আঁখিকে যে জমি দেওয়া হয়েছিল, তা নিয়ে বিভিন্ন জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় বিষয়টি বাফুফের সভাপতি ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে জানিয়েছিল আঁখি।

মন্ত্রণালয় থেকে আমরা আঁখির পরিবারের জন্য উপযুক্ত জমি পেতে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করি। অবশেষে আঁখির মা-বাবার কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে বসতভিটার জমি হস্তান্তর করা হলো।’

এদিকে জেলা প্রশাসক ফারুক আহম্মেদ বলেন, আঁখির পরিবার যেন আর্থিক ব্যয় ছাড়াই ব্যবহার উপযোগী হিসেবে জায়গাটি পায়, সেই লক্ষ্যে কাজ করছি।’

বসতভিটার জমি পেয়ে আঁখির বড় ভাই নাজমুল হোসেন বলেন, ‘মাত্র এক শতক জমির ওপর দো-চালা একটি টিনের ঘর আমাদের। খুবই কষ্ট করে লেখাপড়া করেছে আঁখি। থাকার মাত্র একটি ঘর সেখানেই খুব কষ্ট করে মা বাবা থাকে। আমি থাকি এক চাচার ঘরে। আঁখি বাড়ি এলে মায়ের সঙ্গে খুব কষ্ট করে ঘুমায়। আঁখি শুধু আমার নয় পুরো সিরাজগঞ্জবাসীর গর্ব। তাই আঁখি বাড়ি পাওয়ায় আমি খুবই আনন্দিত।’

বাফুফে থেকে জমির কাগজ বুঝে পেয়ে আঁখির বাবা আক্তার হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমার মেয়েকে যে উপহার দিয়েছেন, এটা দেখে আরও অনেক খেলোয়াড় অনুপ্রাণিত হবেন। ভবিষ্যতে আমার মেয়ে আরও ভালো খেলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর এই উপহার অনুপ্রেরণা জোগাবে। আমরা সবাই প্রাণভরে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করব। তিনি যেন দীর্ঘজীবি হোন।’

২০১৪ সালে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবলে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ইব্রাহিম বালিকা বিদ্যালয়ের হয়ে খেলে প্রথম নজরে আসেন আঁখি। ২০১৫ সালে জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক আসে তার। ২০১৭ সালে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। এ টুর্নামেন্টে সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়ে আঁখি খাতুন গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2