avertisements

সৌরভকে দেখতে বিমানে উড়ে এলেন দেবী শেঠি

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৯:৫৭ পিএম, ২৯ জানুয়ারী,শুক্রবার,২০২১ | আপডেট: ১০:২১ এএম, ১৯ এপ্রিল,সোমবার,২০২১

Text

কিছুক্ষণের মধ্যেই এনজিওগ্রাম করা হবে ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীর।  তাকে দেখতে বিমানে উড়ে এসেছেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি।  তিনি এখন সৌরভকে দেখছেন।

এনজিওগ্রাম করার পর রিপোর্টে এলে তা বিশ্লেষণের পরই সৌরভের হৃদযন্ত্রে স্টেন্ট বসানো হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন দেবী শেঠি।   

ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে, বুধবার থেকে কলকাতার অ্যাপোলো গ্লেনিগ্রেস হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন গাঙ্গুলী।  তার চিকিৎসায় বেঙ্গালুরু থেকে বৃহস্পতিবার সকালেই কলকাতায় উড়ে আসেন দেবী শেঠি।  দমদম বিমানবন্দর থেকে তিনি সরাসরি অ্যাপোলো হাসপাতালে পৌঁছে যান। 

হাসপাতালে পৌঁছার পর থেকেই সৌরভের শারীরিক পরীক্ষার রিপোর্ট খতিয়ে দেখছেন তিনি।  সৌরভের চিকিৎসায় নিয়োজিত বাকি চিকিৎসকদের সঙ্গে বৈঠকে বসে বিকালে স্টেন্ট বসানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করবেন দেবী শেঠি। 

বুধবার হাসপাতালে কলকাতার তিন কার্ডিয়াক স্পেশালিস্টের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন সৌরভ।  চিকিৎসক আফতাব খান, সপ্তর্ষি বসু এবং সরোজ মণ্ডল তার চিকিৎসা করছেন।  আফতাব খান ওই হাসপাতালের কার্ডিয়াক সার্জন।  

তবে সৌরভের পরিবারের অনুরোধে এ তিন চিকিৎসকের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ডা. দেবী শেঠি। হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, গতকালই সৌরভের ক্যাথ ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়েছে।  ইকো কার্ডিয়োগ্রাম এবং ইসিজি করা হয়েছে। 

আজ এনজিওগ্রাম ও রক্ত পরীক্ষা হবে। রিপোর্ট পাওয়ার পর কবে স্টেন্ট বসানো হবে তার সিদ্ধান্ত নেবে মেডিকেল বোর্ড।  তবে সৌরভের বর্তমান অবস্থা অতটা গুরুতর নয় বলে জানিয়েছে হাসপাতাল সূত্র। 

সৌরভের বর্তমান অবস্থার বিষয়ে অ্যাপোলো হাসপাতালের সিইও রানা দাশগুপ্ত জানিয়েছেন, ‘আপাতত স্থিতিশীল আছেন সৌরভ। শারীরিক প্যারামিটার সব ঠিক আছে। তবে আজ তার এনজিওপ্ল্যাস্টি হবে। একটা মেডিকেল বোর্ড তার চিকিৎসা করছে।’

গত ২ জানুয়ারি শরীরচর্চার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন সাবেক ভারতের অধিনায়ক। কলকাতার বেসরকারি উডল্যান্ডস হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়েছিল। হৃদযন্ত্রে ব্লক ধরা পড়ায় একটি স্টেইন বসানো হয়। পরে ডা. দেবী শেঠি ও অন্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে ৭ জানুয়ারি তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তার পর থেকে মহারাজের শারীরিক পরিস্থিতি স্বাভাবিকই ছিল। কিন্তু বুধবার ফের ছন্দপতন হয়। 

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements