avertisements 2

খালেদা জিয়াকে ‌‘স্লো পয়জন’ দেওয়া হয়েছিল কি না, প্রশ্ন ফখরুলের

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ২৫ নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,২০২১ | আপডেট: ১২:৫৮ এএম, ৭ ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,২০২১

Text

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পুরোনো ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখার সময় ‘স্লো পয়জনিং’ করা হয়েছিল কিনা এমন প্রশ্ন তুলেছেন দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আমরা এটা পরিষ্কার করে জানতে চাই। বৃহস্পতিবার(২৫নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে জাতীয়তাবাদী যুবদল আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ প্রশ্ন তোলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, মন্ত্রীরা চাইলেও একজনের কারণে বিদেশ যেতে পারছেন না খালেদা জিয়া। মন্ত্রীরা বলছেন, জনগণ বলছে, সবাই বলছে বিদেশি চাপ আছে। কিন্তু তিনি শুধু প্রতিহিংসার কারণে তিনি কারও কথা শুনছেন না। খালেদা জিয়া এতটাই অসুস্থ যে তাকে দেশে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে শুধু নয়, তাকে জীবন থেকে নিশ্চিহ্ন করতে উঠে-পড়ে লেগেছে সরকার।
 
তিনি বলেন, পরিত্যক্ত কারাগারে রেখে খালেদা জিয়াকে অসুস্থতার দিকে ঠেলে দিয়েছে সরকার। হাসপাতালে রেখেও উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা না করায় আজ দেশনেত্রী গুরুতর অসুস্থ হয়েছেন। আন্দোলন-কর্মসূচি প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখতে, সমাবেশ থেকে হরতাল কর্মসূচি ঘোষণার আহ্বান জানানো হয়। এতে মির্জা ফখরুল কিছুটা ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, কৌশলগতভাবে কর্মসূচি পালন করতে হবে, সবাইকে রাস্তায় নামতে হবে। যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দীন টুকুর পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন, মহানগর উত্তর বিএনপির আহবায়ক আমান উল্লাহ আমান, মহানগর দক্ষিণের আহবায়ক আবদুস সালাম, সদস্য সচিব মোস্তফা জগলুল পাশা পাপেল, দক্ষিণের আহ্বায়ক গোলাম মাওলা শাহিন, সদস্য সচিব এনামুল হক এনাম, উত্তরের সাবেক সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান প্রমুখ।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2