avertisements 2

মায়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন সন্তান, ইসলাম কী বলে?

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ৪ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,২০২২ | আপডেট: ০১:০৭ পিএম, ১২ আগস্ট,শুক্রবার,২০২২

Text

অপূর্বরা দুই ভাই। বড় ভাই ইমরান হোসেন পেশায় একজন ব্যবসায়ী। তিনিও বিবাহিত। রয়েছে ৫ বছরের এক সন্তানও। আর ছোট ছেলে অপূর্ব ‘জি অ্যান্ড টেক’ নামে একটি অনলাইন প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা। ‘বাবা মারা গেছেন, তাই মায়ের জন্য পাত্র খুঁজছে সন্তান’- এমন শিরোনামের একটি পোস্ট সম্প্রতি ভাই’রাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। মায়ের জন্য ফেসবুকে সন্তানের পাত্র খোঁজার এমন অভিনব পোস্ট সাড়া ফেলেছে পুরো দেশে। যা নিয়ে চলছে আলোচনা ও সমালোচনা।

মূলত মায়ের একাকিত্ব দূর করতে এবং মাকে ভালো রাখতেই ফেসবুকের একটি গ্রুপে পোস্টটি করেন ঢাকার কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা মোহাম্মদ অপূর্ব। অপূর্বের মায়ের নাম ডলি আক্তার। বয়স ৪২ বছর। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে বিধবা বা তালাকপ্রাপ্ত নারীকে কি আবারও বিয়ে দেয়া যায়? বিশেষ করে মায়ের জন্য কি সন্তান পাত্র খুঁজতে পারেন? সেক্ষেত্রে ইসলাম কি বলে?

এ প্রসঙ্গে ইসলামী চিন্তাবিদ শায়খ আহমাদুল্লাহ বলেন, বিধবা, তালাকপ্রাপ্ত বা স্ত্রী হারা যে কাউকে বিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া নিঃসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। এটি ইসলাম সম্মত। নবীজিও এটি পছন্দ করতেন। শায়খ আহমাদুল্লাহ বলেন, সঙ্গীহারা অবস্থায় বাকি জীবন কাটানো বেশ কষ্টের। এটা আমাদের সমাজের অনেকেই বুঝতে চান না। সন্তানদের উচিত বাবা-মা এমন অবস্থায় বিয়ে করতে চাইলে, তাদের অনাপত্তি না থাকলে বিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া। এক্ষেত্রে বলা যায়, কেরানীগঞ্জের অপূর্ব আমাদের জন্য আদর্শ হতে পারে।

সন্তানের জন্য সব কিছু উজাড় করা মা-বাবা যখন সঙ্গী হারিয়ে নিঃসঙ্গতায় ভোগেন, তখন তাদের নিঃসঙ্গতা দূরের উদ্যোগ নেয়াই প্রকৃত সন্তানের কাজ। সেক্ষেত্রে অপূর্বের নেয়া উদ্যোগটি সন্দেহাতীতভাবে ভালো হলেও মায়ের ছবি জনসম্মুখে প্রকাশ করার ধরনটি কিছুটা ইসলাম সম্মত নয় বলেও মন্তব্য করেন এ ইসলামী চিন্তাবিদ।

তিনি বলেন, মায়ের বিয়ের জন্য ছবিসহ পাত্র চেয়ে পাবলিকলি পোস্ট করা উচিত হয়নি। এটা ইসলাম সম্মত নয়। তবে তালাকপ্রাপ্ত, বিধবা কিংবা স্ত্রী হারা ব্যক্তিদের বিয়ের উদ্যোগটিকে আমরা স্বাগত জানাতে পারি।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2