avertisements

ফারুকের পাশের কেবিনে তাঁর স্ত্রী, তবুও সাক্ষাৎ নেই ৮ দিন

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০১:১১ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর,সোমবার,২০২০ | আপডেট: ১২:১১ পিএম, ২৪ অক্টোবর,শনিবার,২০২০

Text

প্রায় মাসখানেক জ্বরে ভোগার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ১৩ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরে গিয়েছেন কিংবদন্তি চিত্রনায়ক ও ঢাকা- ১৭ আসনের সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। সঙ্গে রয়েছেন তাঁর স্ত্রী ফারহানা ফারুক।

করোনা পরিস্থিতির কারণে নিয়ম অনুযায়ী সিঙ্গাপুর গিয়েই মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ফারুক ও তাঁর স্ত্রীকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে। এসময়ের মধ্যে তাঁরা কেউ কেবিন থেকে বের হতে পারবেন না।  ফারুকের দেখাশোনার জন্য পাশের কেবিনেই রয়েছেন তাঁর স্ত্রী ফারহানা ফারুক। কিন্তু গত ৮ দিনে তাঁরা একে অপরের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি।  

সিঙ্গাপুর থেকে ফারহানা ফারুক জানান, নিয়ম মেনে আমরা দুজন এখন কোয়ারেন্টিন অবস্থায় আছি। রুমের মধ্যে ১৪ দিন কাটাতে হবে। এরমধ্যে ৮ দিন অতিবাহিত হয়েছে, কিন্তু এসময়ের মধ্যে আমরা দুজন একে অপরকে সরাসরি দেখতে পারিনি। তবে মোবাইলে ও ভিডিও কলে প্রতিনিয়ত কথা হচ্ছে। কিন্তু এতে কী আর মন ভরে। এজন্য তাঁর (ফারুকের) ভীষণ মন খারাপ।

তিনি আরও জানান, এরই মধ্যে হাসপাতালে শুরু হয়েছে ফারুকের চিকিৎসা। তাঁর জ্বর কমেছে। কিডনি ও হার্ট ভালো আছে। তবে অন্য কোনো সমস্যা আছে কিনা সেটা জানার জন্য চিকিৎসকরা এই প্রবীণ অভিনেতার বেশকিছু শারীরিক পরীক্ষা করিয়েছেন। এর পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট জানা যাবে আগামী বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর)।

গত ১৮ আগস্ট প্রথম তীব্র জ্বর নিয়ে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হন ফারুক। ধারণা করা হচ্ছিলো তিনি করোনায় আক্রান্ত। তবে বেশ কয়েক দফায় করোনা টেস্টের রেজাল্ট নেগেটিভ এসেছে। তখন বেশ কয়েক দিন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে কিছুটা সুস্থ হওয়ায় গত ২৬ আগস্ট বাসায় ফিরেন এই তারকা।  

কিন্তু পুনরায় তাঁর জ্বর আসে। এরপর আরও কয়েক দফায় হাসপাতালে ভর্তি হয়ে শেষ পর্যন্ত দেশ থেকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যেতে হলো চলচ্চিত্রের 'মিয়া ভাই'খ্যাত এই অভিনেতাকে।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements