avertisements

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন  হাসান মাহমুদ চৌধুরী সিআইপি

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৭:২১ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর,সোমবার,২০২০ | আপডেট: ০৬:০৯ এএম, ৩০ অক্টোবর,শুক্রবার,২০২০

Text

চট্টগ্রাম নগরের চান্দগাঁও আবাসিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি ও কাশেম-নুর ফাউন্ডেশনের কো-চেয়ারম্যান শিল্পপতি হাসান মাহমুদ চৌধুরী আজ সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানী ঢাকার আনোয়ার খান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ও’য়া ইন্না ইলাহি রা’জিউন)। 

করোনার শুরু থেকে ঢাকায় অবস্থান করে মানবিক সহায়তার তদারকি করছিলেন হাসান মাহমুদ চৌধুরী। কিন্তু তিনি চট্টগ্রামের কিছু মানবিক কাজে এবং জাতীয় শোক দিবসে চান্দগাঁও আবাসিক কল্যাণ সমিতির আলোচনা সভা, রক্তদান কর্মসূচি ও গরিবদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণে অংশ নিতে চট্টগ্রামে ছুটে যান। এসময় বিভিন্ন সেবামূলক কাজে অংশগ্রহণ করার এক পর্যায়ে হঠাৎ অসুস্থতা অনুভব করায় তাঁকে ২৭ আগস্ট ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ওইদিন করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরেরদিন (২৮ আগস্ট) করোনা পরীক্ষার রিপোর্টে পজিটিভ পাওয়া যায়।

গত ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকায় নিজ বাসায় চিকিৎসাধীন থাকা হাসান মাহমুদের শারীরিক অবনতি হলে তাকে আনোয়ার খান মেডিকেল কলেজে ভর্তি করানো হয়। এরপর তাকে আইসিইউ বেডে হস্তান্তর করে হাই ফ্লো অক্সিজেন সেবা দেওয়া হয়।

চট্টগ্রামে অবস্থানকালে তিনি করোনা আইসোলেশন সেন্টার চট্টগ্রামের জন্য ৫ লক্ষ টাকা, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন সেবকদের নতুন পোশাকের জন্য ২০ লক্ষ টাকাসহ চসিককে ২২ লক্ষ টাকার অনুদান দেন। এছাড়াও হাসান মাহমুদ চৌধুরী দেশে করোনা মহামারিতে অন্তত দেড় লক্ষ মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রামে প্রায় ৫০ হাজার মানুষের ঘরে পোঁছে দিয়েছেন খাদ্য সহায়তা।

উল্লেখ্য, জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সাবেক মন্ত্রী জিয়াউদ্দিন আহমদ বাবলুর ছোট ভাই হাসান মাহমুদ চৌধুরী চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতির সভাপতি, ল্যাটিন আমেরিকা বাংলাদেশ চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও থাই চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক হিসেবেও বেশ সুনামের সঙ্গে দায়িত্বপালন করছেন।

অস্ট্রেলিয়া তথা সিডনির বাংলাদেশী কমিউনিটির কাছে তিনি ছিলেন অত্যন্ত প্রিয় মানুষ। তিনি সিডনি সফরকালে চট্রগ্রাম সমিতি অস্ট্রেলিয়া, সিডনি প্রেস এন্ড মিডিয়া কাউন্সিল সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনেকে আর্থিক সহায়তা করেছিলেন।।
 

বিষয়: করোনা
avertisements