avertisements

বয়স কোন বাধা নয়, প্রমাণ দিলেন সোহেল তাজ

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৭:৫৫ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,২০২০ | আপডেট: ০১:৫২ এএম, ১ নভেম্বর,রবিবার,২০২০

Text

সোহেল তাজ বাংলাদেশের প্রাক্তন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। তার আরেক পরিচয় তিনি বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমেদের সর্বকনিষ্ঠ সন্তান। তিনি মন্ত্রীত্ব ছেড়ে দেশের বাইরে চলে গিয়েছিলেন। পরে দেশে ফিরে আসেন তিনি।

সম্প্রতি যুবাদের নিয়ে কাজ করছেন সোহেল তাজ। টেলিভিশন শো করে তিনি যুবকদের সমসাময়িক অবস্থা জানতে চেয়েছেন।

এরমধ্যেই তিনি শরীরচর্চায় মনোযোগী হয়েছেন। বয়সে তরুণ না হলেও বয়স যে তারুণ্যের পথের কোন বাধা হতে পারে না তা তিনি অক্ষরে অক্ষরে প্রমাণ করেছেন।

সোহেল তাজ তার ফেসবুক পেইজে একটি ছবি পোস্ট করার পরেই এ কথাটি যেন আরো সত্য হয়ে ফুটে উঠলো। ছবিটি ইতোমধ্যেই সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। ছবিটিতে তার ফিটনেসের অনন্য এক রূপ ধরা পড়েছে।

তবে সোহেল তাজ শর্ত দিয়ে দিয়েছেন 'নো ড্রাগস' অর্থাৎ মাদক নয়। মাদককে না বলো এবং ফিটনেসকে হ্যাঁ।' শুধু তাই নয়, কিছু তরুণ প্রাণকে সোহেল তাজ নিজের এই ফিটনেসের রহস্য শেখাবেন। তিনি আবেদন করতে বলেছেন, এর মধ্যে সীমিত সংখ্যক তরুণকে বাছাই করে নেবেন সোহেল তাজ।

সোহেল তাজ গাজীপুর জেলার অন্তর্গত কাপাসিয়ার দরদরিয়া গ্রামে ১৯৭০ সালের ৫ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা তাজউদ্দীন আহমদ ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা। মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। ৪ ভাই বোনের মধ্যে তানজিম সবার ছোট। বড় বোনে শারমিন আহমদ রিপি; মেজো বোন বিশিষ্ট লেখিকা ও কলামিস্ট এবং গাজীপুর-৪ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি এবং ছোট বোন মাহজাবিন আহমদ মিমি।

২০০১ সালের নির্বাচনে গাজীপুর-৪ (কাপাসিয়া) থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সোহেল তাজ। তখন তিনি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন। ২০০৮ সালে একই আসন থেকে সাংসদ হিসাবে নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান সোহেল তাজ। একই বছরের ৩১ মে মন্ত্রিসভা থেকে ব্যক্তিগত কারণে তিনি পদত্যাগ করেন।

উৎসঃ   সময়টিভি

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements