avertisements

স্বাধীনতার সপক্ষ অটোপাসকে ভালো চোখে দেখে: হানিফ

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৩:৫১ পিএম, ২৭ অক্টোবর,মঙ্গলবার,২০২০ | আপডেট: ০৪:৪৮ এএম, ৩ ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,২০২০

Text

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, করোনার সময়ে আমাদের বাচ্চাদের বা যাদের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল তাদেরকে যে অটোপাশ দেওয়া হয়েছে এক সময় প্রমাণিত হবে এই সিদ্ধান্ত কতখানি বিচক্ষণতাপূর্ণ ছিল। আমি বিশ্বাস করি বিএনপির যারা এই ধরণের কথা বলছেন তারা তাদের ভুল বুঝতে পারবে। সোমবার (২৬ অক্টোবর) কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, স্বাধীনতার পর বাহাত্তর সালে অটোপাশ নিয়ে যারা কথা বলেন, তারা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেননি। সেই সময় স্বাধীনতার পক্ষে যাদের অবস্থান ছিল না, তারা যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাকিস্তানের আনুগত্য প্রকাশ করেছিল। তারা বাহাত্তরের অটোপাশকে খুব ভালো চোখে দেখে না। স্বাধীনতা যেমন তাদের কাছে আনন্দের বা গ্রহণযোগ্য ছিল না। ওই পাশটাও তাদের কাছে সেভাবে গ্রহণযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয় নাই।

সাম্প্রতিকালে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, মত প্রকাশের সুযোগ আছে বলেই উনি (ফখরুল) সরকারের বিরুদ্ধে এই সমস্ত অপ্রাসঙ্গিক, অযোক্তিক এবং অসত্য কথাগুলো বলে যাচ্ছেন। এর চেয়ে আর কি সুযোগ চাইতে পারেন।

তিনি আরও বলেন, একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সরকার, সরকারের প্রধান হন প্রধানমন্ত্রী। তার অধীনে মন্ত্রিপরিষদ কাজ করেন। সেই হিসেবে প্রধানমন্ত্রী একজনই হন। নির্বাহী প্রধান হিসেবে সরকারের প্রধানমন্ত্রী অনেক বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেন বা সকল মন্ত্রাণালয়ের সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে মতামত দিয়ে থাকেন। এটাই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা।

হানিফ বলেন, বিএনপির সমস্যা হলো তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান সামরিক ব্যক্তি ছিলেন। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে সরকার গঠন করেছিলেন। সেই সময়ে তিনি ক্যান্টনমেন্টে বসে যেভাবে এককভাবে দেশ পরিচালনা করেছেন, দলও পরিচালনা করেছেন এককভাবে। তারা এই এককভাবে দল পরিচালনা, দেশ পরিচালনা দেখে অভ্যস্ত। তারা এখন স্বপ্নে বা জেগে শুধু ওই স্বপ্নটাই দেখতে থাকেন।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements