avertisements

জায়েদ খান খুবই খারাপ কাজ করেছে: খোকন

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৪:২১ এএম, ১৯ নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,২০২০ | আপডেট: ০৮:১৪ এএম, ২৭ নভেম্বর,শুক্রবার,২০২০

Text

লম্বা সময় পর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থা (বিএফডিসি) আবার সরগরম। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটি বাতিল করে সেখানে প্রশাসক বসানোর ঘটনায় আলোচনায় চলচ্চিত্রের এ আতুঁরঘর। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের অভিযোগের তদন্তের ভিত্তিতে ২০১৯-২১ মেয়াদের কমিটি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ১৬ নভেম্বর (সোমবার) এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করে মন্ত্রণালয়।

আদেশ জারির পর দিনভর ফিল্মপাড়ায় আলোচনায় এ বিষয়টি। এটিকে ভালো চোখে নেয়নি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট একাধিক সংগঠন। এ প্রসঙ্গে কথা বলতে চাইলে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন ১৭ নভেম্বর (মঙ্গলবার) দুপুরে বলেন, ‘আমি এখনো পুরো বিষয়টি জানি না। ফেসবুকে দেখেছি। পারফেক্টলি এখনো জানি না।’

বিষয়টি আরও ঘোলা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা (পরিচালক সমিতি) তো আছি। নির্বাচন কমিশনের প্রধান হলেন সব কিছু। তারা যেভাবে বিষয়টি ধরছে প্রযোজক সমিতির গঠনতন্ত্রে এভাবে নেই। গঠনতন্ত্রে আছে, টানা ছয় বছর ক্ষমতায় থাকার পর সপ্তম বছরে যে নির্বাচন হবে সে নির্বাচনে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে রার্নিং সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক অংশ নিতে পারবেন না। কিন্তু প্রযোজক সমিতিতে টানা ছয় বছর কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারেননি। ছয়মাস বা নির্বাচনের আগেই মামলা করে কমিটি বাতিল করে দিয়েছে। তারপর নির্বাচন হয়েছে। এটাকে কিন্তু টানা ক্ষমতায় ধরা হবে না।’

‘প্রযোজক সমিতির গেল নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সেলিম হোসেন। তখন তিনি এ জিনিসগুলো দেখেননি?’ প্রশ্ন তোলেন পরিচালক সমিতির মহাসচিব। যোগ করে তিনি আরও বলেন, ‘উনি যদি বিষয়গুলো না দেখেন তাহলে দায়ভার তো সব বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের। ২০০২, ২০০৪, ২০০৬ সালে উনারা ক্ষমতায় ছিল কিন্তু কখনোই টানা ছয় বছর ছিল না। এটাকে কোট করে না আপিল করছে। বিস্তারিত আমি আরও পরে জানতে পারব।’

জায়েদ খানকে বয়কট করেছিল চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮ সংগঠন। এটা কি অনড় থাকবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘হ্যা, একশ ভাগ থাকবে। আগে প্রযোজক সমিতি নেতৃত্ব দিত, এখন পরিচালক সমিতি দিবে। এটা থাকবেই। জায়েদ খুবই খারাপ কাজ করেছে। জায়েদ খান আর মিশা এখন আজীবন বয়কট হবে।’

‘যতকিছুই হোক আমি যদি সিনেমায় থাকি, তাহলে এফডিসি সংশ্লিষ্ট লোকদের সঙ্গেই আমার চলাফেরা করতে হবে। এফডিসি সংশ্লিষ্ট লোকজনদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য, দোষারোপ করে আপনি টিকতে পারবেন না। ঠিক আছে, আপনার ক্ষমতা আছে। এখন আপনার ক্ষমতার উৎসও বের হবে। আপনি তো খুব বড় লোকের ছেলেও না, আর সিনেমার সুপারস্টারও না। সিনেমায় আপনার সম্মানী সর্বোচ্চ হলে ৫০ হাজার টাকা।’ ক্ষোভ প্রকাশ করে জায়েদ খানের উদ্দেশে কথাগুলো বলেন পরিচালক সমিতির এ নেতা।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements