Main Menu

অতীতের যেসব রেকর্ড ভেঙ্গে-চূড়ে ধেয়ে আসছে আমপান, কঠিন হুশিয়ারি

শক্তিশালী থেকে অতি শক্তিশালী হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় আমপান। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আমপানের শক্তি কয়েকগুণ বাড়বে। আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, আমপান ‘সুপার সাইক্লোন স্টর্ম’-এর চেহারা নেবে। এই অতি শক্তিশালী ঘূ্র্ণিঝড়ের ঘূর্ণনের গতিবেগ হতে পারে সর্বোচ্চ ২১০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, সোমবার সন্ধ্যায় পশ্চিম মধ্যবঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৯৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।
সিএনএন বলেছে, আমফান ইতোমধ্যে আটলান্টিক অঞ্চলের ৪ ক্যাটাগরির হারিকেনের গতিসম্পন্ন হয়ে গেছে।

আবহাওয়াবিদেরা বলছেন, ঘুর্ণিঝড় আমফান উপকূলে উঠার পর গতি দ্রুত কমে গেলেও যা গতিবেগ থাকবে তা সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলো দুমড়ে-মুচরে দিয়ে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট হবে। উপকূলে উঠার আগে ও পরে কমপক্ষে ৩০ ফুট (৯মিটার) উচ্চতার জলোচ্ছাসে স্থলভাগের বিশাল অংশ পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

১৯৯১ সালের পরে বঙ্গোপাসাগরে এত শক্তিশালী ঘুর্ণিঝড় আর সৃষ্টি হয়নি। সিডর ও আইলার গতিও এতো ছিল না। সিডরের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ২২০ কিলোমিটার।

ভারতের বেসরকারি আবহাওয়া পূর্বাভাস সংস্থা স্কাইমেটের প্রধান মহেশ পালাওয়াট জানাচ্ছেন, "এই শতাব্দীতে প্রাক-মনসুন পর্বে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া এটাই কিন্তু প্রথম সুপার সাইক্লোন।"

"এর আগে ২০০৭ সালের জুনে আরব সাগরে সুপার সাইক্লোন 'গোনু' তৈরি হয়েছিল – যেটা পরে ওমানের দিকে সরে যায়।"

"আমপান এর মধ্যেই ঘন্টায় ১৫০ কিলোমিটারেরও বেশি গতিবেগসম্পন্ন ঝড়ো বাতাস সঙ্গে 'প্যাক' করে নিয়েছে। মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে এটা একটা ঘূর্ণিঝড় থেকে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে, সেটাও একটা রেকর্ড।"

উপকূলের কাছাকাছি এলে এই ঘূর্ণিঝড়ের তীব্রতা সামান্য কমবে, তবে তার পরেও এর বিধ্বংসী ক্ষমতাকে খাটো করে দেখার কোনও সুযোগ নেই – জানাচ্ছেন তিনি।

তিনি বলছিলেন, "স্থলভূমি থেকে শুকনো বাতাস এসে সিস্টেমটাকে কিছুটা দুর্বল করে দেয় – এই আমপানের ক্ষেত্রেও সেটাই ঘটবে। কিন্তু তার পরেও এটা একটা প্রচন্ড সাঙ্ঘাতিক ঘূর্ণিঝড় – যার তান্ডব আর ক্ষয়ক্ষতি সাধনের ক্ষমতা মারাত্মক। ফলে পুরো উপকূলীয় এলাকা জুড়েই মানুষকে সাবধান থাকতে হবে।" বিবিসি।

 


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT