Main Menu

ব্লাক হোল টেনে নিচ্ছে সূর্যের পাঁচগুণ ওজনের নক্ষত্রের আলো

পৃথিবীর খুব কাছে ব্লাক হোল, টেনে নিচ্ছে সূর্যের পাঁচগুণ ওজনের নক্ষত্রের আলো! অবাক বিজ্ঞানীরা ব্লাক হোলের আকর্ষণ ক্ষমতা এতই বেশি যে এটি থেকে আলো ঠিকরে বেরোতে পারে না। সে কারণে প্রতিফলিত রশ্মির সাহায্যে এটিকে দেখতে পাই না আমরা।

পৃথিবীর নিকটতম ব্লাক হোলের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা। পৃথিবী থেকে যার দূরত্ব মাত্র এক হাজার আলোকবর্ষ। কিন্তু জ্যোতির্বিজ্ঞানের বিচারে পৃথিবী থেকে এই আলোকবর্ষ দূরত্বকে প্রতিবেশীর দূরত্বই বলা চলে। বুধবার ইউরোপিয়ান সাদার্ন অবজারভেটারির বিজ্ঞানী থোমাস রিভিনিয়াস একটি গবেষণা পত্রে এই দাবি করেছেন।

এর আগে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের ব্লাক হোলটি ছিল ৩২০০ আলোকবর্ষ দূরে। ফলে বর্তমানে এটিই পৃথিবীর নিকটতম ব্লাক হোল।
এর আগে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের ব্লাক হোলটি ছিল ৩২০০ আলোকবর্ষ দূরে। ফলে বর্তমানে এটিই পৃথিবীর নিকটতম ব্লাক হোল।

কিন্তু মুশকিল হল, ব্লাক হোলের আকর্ষণ ক্ষমতা এতই বেশি যে এটি থেকে আলো ঠিকরে বেরোতে পারে না। সে কারণে প্রতিফলিত রশ্মির সাহায্যে এটিকে দেখতে পাই না আমরা। মহাকাশে তাই এই ব্লাক হোলটি খুঁজে বের করা একান্ত অসম্ভব।

এর আগে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের ব্লাক হোলটি ছিল ৩২০০ আলোকবর্ষ দূরে। ফলে বর্তমানে এটিই পৃথিবীর নিকটতম ব্লাক হোল।
কিন্তু মুশকিল হল, ব্লাক হোলের আকর্ষণ ক্ষমতা এতই বেশি যে এটি থেকে আলো ঠিকরে বেরোতে পারে না। সে কারণে প্রতিফলিত রশ্মির সাহায্যে এটিকে দেখতে পাই না আমরা। মহাকাশে তাই এই ব্লাক হোলটি খুঁজে বের করা একান্ত অসম্ভব।

বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, বেশিরভাগ ব্লাক হোলের আশেপাশেই আর তার ভিতরে টেনে নেয়ার মতো কিছু নেই। তাই এদের খুঁজে বের করা অসম্ভব।

কিন্তু মুশকিল হল, ব্লাক হোলের আকর্ষণ ক্ষমতা এতই বেশি যে এটি থেকে আলো ঠিকরে বেরোতে পারে না। সে কারণে প্রতিফলিত রশ্মির সাহায্যে এটিকে দেখতে পাই না আমরা। মহাকাশে তাই এই ব্লাক হোলটি খুঁজে বের করা একান্ত অসম্ভব।
বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, বেশিরভাগ ব্লাক হোলের আশেপাশেই আর তার ভিতরে টেনে নেয়ার মতো কিছু নেই। তাই এদের খুঁজে বের করা অসম্ভব।

বিজ্ঞানীরা এটিকে খুঁজে বের করতে পেরেছেন কারণ, এটির চারিদিকে তিনটি নক্ষত্র বা তারা মিটমিট করছে, বিজ্ঞানীরা বলছেন, ‘নৃত্যরত তারা।’ সেগুলির গতিবিধি যেন মানু্ষরে নাচের মতো, অনেকটা ব্যালে ডান্সের মতো। এই অপরূপ মহাজাগতিক দৃশ্য তাঁরা প্রত্যক্ষ করেছেন।

বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, বেশিরভাগ ব্লাক হোলের আশেপাশেই আর তার ভিতরে টেনে নেয়ার মতো কিছু নেই। তাই এদের খুঁজে বের করা অসম্ভব।
বিজ্ঞানীরা এটিকে খুঁজে বের করতে পেরেছেন কারণ, এটির চারিদিকে তিনটি নক্ষত্র বা তারা মিটমিট করছে, বিজ্ঞানীরা বলছেন, ‘নৃত্যরত তারা।’ সেগুলির গতিবিধি যেন মানু্ষরে নাচের মতো, অনেকটা ব্যালে ডান্সের মতো। এই অপরূপ মহাজাগতিক দৃশ্য তাঁরা প্রত্যক্ষ করেছেন।

চিলিতে একটি টেলিস্কোপ ব্যবহার করে তারা দেখেছেন, সূর্যের থেকে চার পাঁচগুণ বড় একটি নক্ষত্রকে একটি অজানা কালো বিন্দু ক্রমশ নিজের দিকে টেনে নিচ্ছে। তাই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এ বøাক হোল ছাড়া আর কিছু হতে পারে না।

বিজ্ঞানীরা এটিকে খুঁজে বের করতে পেরেছেন কারণ, এটির চারিদিকে তিনটি নক্ষত্র বা তারা মিটমিট করছে, বিজ্ঞানীরা বলছেন, ‘নৃত্যরত তারা।’ সেগুলির গতিবিধি যেন মানু্ষরে নাচের মতো, অনেকটা ব্যালে ডান্সের মতো। এই অপরূপ মহাজাগতিক দৃশ্য তাঁরা প্রত্যক্ষ করেছেন।
চিলিতে একটি টেলিস্কোপ ব্যবহার করে তারা দেখেছেন, সূর্যের থেকে চার পাঁচগুণ বড় একটি নক্ষত্রকে একটি অজানা কালো বিন্দু ক্রমশ নিজের দিকে টেনে নিচ্ছে। তাই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এ বøাক হোল ছাড়া আর কিছু হতে পারে না।

চিলিতে একটি টেলিস্কোপ ব্যবহার করে তারা দেখেছেন, সূর্যের থেকে চার পাঁচগুণ বড় একটি নক্ষত্রকে একটি অজানা কালো বিন্দু ক্রমশ নিজের দিকে টেনে নিচ্ছে। তাই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এ বøাক হোল ছাড়া আর কিছু হতে পারে না।

চিলিতে একটি টেলিস্কোপ ব্যবহার করে তারা দেখেছেন, সূর্যের থেকে চার পাঁচগুণ বড় একটি নক্ষত্রকে একটি অজানা কালো বিন্দু ক্রমশ নিজের দিকে টেনে নিচ্ছে। তাই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এ বøাক হোল ছাড়া আর কিছু হতে পারে না।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT