Main Menu

বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়ার (BSCA) পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

গত ২৫শে এপ্রিল ২০১৯ বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশীদের  সামাজিক সংগঠন ‘বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়া’র (BSCA) পুনর্মিলনী ২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়। অত্যন্ত মনোরম এক প্রাকৃতিক পরিবেশ ও নয়নাভিরাম দৃশ্য নিয়ে সিডনি মেট্রোপলিটন এলাকার এক প্রান্তে অবস্থিত পর্যটন কেন্দ্র মাউন্ট আনানের বোটানিক গার্ডেনে এ আয়োজন সম্পন্ন হয়। চারদিকে ছোট ছোট পরিকল্পিত লেক এবং তার মাঝে বিভিন্ন ধরণের উদ্যান ও পরিমিত বাহারী গাছপালা দিয়ে সাজানো এই অনবদ্য পরিবেশ যেন ভাষায় পুরোপুরি প্রকাশ করার মতো নয়। 

পার্কটির একপাশে বিশাল অংশ সুবিশাল ছাউনি দিয়ে ঢাকা। সে ছাউনিতেই দিনের শুরুতে এ পুনর্মিলনী আনুষ্ঠানিকভাবে আরম্ভ হয়। অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশী কমিউনিটির নতুন প্রজন্মের সদস্য ফায়াজ হোসেন খানের কণ্ঠে পবিত্র কোরআন শরীফ থেকে তিলাওয়াত এবং চমৎকার ইংলিশ অনুবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সুচনা হয়। 

বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়ার (BSCA) এ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে সিডনির বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন পেশার বাংলাদেশী প্রবাসীরা ও কমিউনিটির সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ সপরিবারে উপস্থিত ছিলেন। 

 

পবিত্র কোরান থেকে তিলাওয়াতের পর সংগঠনটির সিনিয়র লিডার দেলোয়ার হোসেন খান সুচনা বক্তব্য পেশ করেন। তিনি তার বক্তব্যে অত্যন্ত সুন্দরভাবে বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়া সংগঠনটির উদ্দেশ্য ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তুলে ধরেন। 

এরপর বসংগঠনের বিভিন্ন কর্মসূচী ও কার্যক্রম প্রসঙ্গে বিস্তারিত বর্ণনা করেন হোসেন আরজু। তিনি বিগত দিনে এ সংগঠনের বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড সবার সামনে তুলে ধরে সকলের মন জয় করে নেন। 

তারপর উপস্থিত সুধীদের সামনে কথা বলেন এই সামাজিক সংগঠনটির মাধ্যমে উপকারপ্রাপ্ত দুইজন ব্যক্তি, পারভেজ  আলম ও সৈয়দ আশীষ রহমান। তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার কথা শুনে সকলেই অভিভূত হয়েছেন। এ সময় উপস্থিত দর্শকদের মাঝ থেকে সরাসরি প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়। তাদের অনেকেই বিস্ময়ের সাথে প্রশ্ন করেন, অল্প সময়ের মাঝেই সংগঠনটি এমন সুদুরপ্রসারী এবং বিপুল ব্যপ্তিসম্পন্ন সামাজিক ও দানশীল কর্মকান্ড কিভাবে সম্পন্ন করেছে? এ সময় জানা যায়, কোন ধরণের সরকারী বা বেসরকারী অনুদান ছাড়াই কেবলমাত্র সদস্যদের ব্যক্তিগত উদ্যোগের সমন্বয়ে এটি হলো প্রবাসীদের একমাত্র সংগঠন যা সর্বস্তরের জনগণের উপকারার্থে অবদান রেখে যাচ্ছে।

বক্তব্য পর্বের পর সাধারণ প্রশ্নোত্তর ও সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়। এতে প্রবাসী পরিবারগুলোর শিশু কিশোররা স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করে। তাদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন বিশিস্ট ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম এবং ডাক্তার মইনুল ইসলাম। 

সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতার পরপরই বিভিন্ন ধরণের বিনোদনমূলক স্পোর্টস আয়োজন করা হয়। বিভিন্ন বয়সের উপস্থিতির জন্য নানা ধরণের খেলাধুলা ও বিনোদনমুলক অংশগ্রহণের এ আয়োজনের দায়িত্বে ছিলেন সংগঠনটির অন্যতম সদস্য জামিল হোসেন। 

ছেলে-মেয়ে ও বয়স্কদের জন্য ছিলো একশ মিটার দৌড় প্রতিযোগিতা। পাশাপাশি উপস্থিত নারী সদস্যদের জন্য আয়োজন করা হয়েছিলো নানা ধরণের প্রতিযোগিতা ও উৎসাহমূলক বিনোদন আয়োজন। এ সময় বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও আয়োজনে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে সৌজন্য পুরস্কারও বিতরণ করা হয়। 

সবমিলে পুরো অনুষ্ঠানটিউ সাজানো-গোছানো এবং পরিকল্পিত আয়োজনে ভরপুর একটি সময় উপহার দিয়েছে এদিন অংশগ্রহণকারী সবাইকে। দিনের প্রথমার্ধ শেষে জোহরের নামাজের পর সবাই একত্রে মধ্যাহ্নভোজ গ্রহণ করেন। নানা সুস্বাদু খাবারের পরিবেশনা সবাইকে তৃপ্ত করেছে। দেশীয় রুচির বিভিন্ন বিলাসী এবং উপাদেয় খাবারে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানটি স্বার্থক হয়ে উঠে। নানা পদের ও স্বাদের পর্যাপ্ত খাবার এবং পানীয় ছিলো প্রকৃতপক্ষেই এদিনের এ অনুষ্ঠানটির অন্যতম এক আকষর্ণ। 

পরবর্তীতে দিনের দ্বিতীয়ার্ধ্বে অনেকেই বিভিন্ন খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করেন, আবার অনেকে তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে পার্কটির মনোরম পরিবেশে অবসর সময়টুকু উপভোগ করেন। 

প্রায় দুইশ মানুষের উপস্থিতিতে এ বিশাল আয়োজনের স্থান নির্ধারণ ও ব্যবস্থাপনা, খাদ্য ব্যবস্থাপনা ও অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য সংগঠনটির দু’জন নেতা বিশেষভাবে ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য। হোসেন আরজু এবং মাহবুব চৌধুরী (শরীফ), এ দু’জনেই বিশেষ ত্যাগ স্বীকার ও পরিশ্রমের মাধ্যমে সবার জন্যই উপভোগ্য একটি অনুষ্ঠান উপহার দিতে পেরেছেন। তাদের সাথে স্বেচ্ছাসেবা হিসেবে  অংশ নিয়েছেন তাজুল ইসলাম, হাবীব হাসান, জুয়েল জাকারিয়া, আবুল বাসার, আবুল কালাম আজাদ, ইকবাল, জিয়াউর রহমান, জসিম চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসির আহমেদ প্রমুখ। বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়া  তাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছে। এছাড়াও এদিন  অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এম. এ. ইউসুফ (শামীম)। 

সবকিছু মিলিয়ে এ ধরনের গুছালো একটি ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়। প্রবাসের যান্ত্রিক জীবনের মাঝে কিছুটা অবকাশ যাপনের জন্য সবাই উন্মুখ হয়ে থাকেন। এই চাহিদা পূরণে অনেক দিন পর এ ধরনের একটি পরিচ্ছন্ন ও রুচিশীল অনুষ্ঠান আবারো প্রমাণ করলো যে বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অফ অস্ট্রেলিয়া সংগঠনটি সব ধরণের প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রাণের একটি সংগঠন। সংগঠনটি বর্তমানে প্রত্যেক প্রবাসী বাংলাদেশীর সেবায় স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কাজ করে যাচ্ছে এবং উপকার সাধনের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এ ধরণের নিরপেক্ষ একটি প্রথম সংগঠন হিসেবে অতি অল্প সময়ের ভেতরেই তারা প্রভূত কৃতিত্বের পরিচয় দিয়ে ভুক্তভোগী ও মজলুম মানুষদের মন জয় করে নিতে সক্ষম হয়েছে।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT