Main Menu

আই এস যোদ্ধারা পৃথিবীর বিভিন্ন টার্গেটে হামলার জন্য ওঁত পেতে রয়েছে

মোঃ শফিকুল আলম: সিরিয়ায় ঘোষিত ইসলামিক স্টেটের পতন হলেও অংশগ্রহনকারী যোদ্ধারা অবশ্যই পৃথিবীর বিভিন্ন টার্গেটে হামলার অপেক্ষায় ওঁত পেতে রয়েছে

 

 

সর্ব শেষ ইসলামিক স্টেটের শক্ত ঘাঁটি সিরিয়ার বাগুজ শহরের পতন পূর্বে এ বছরের মধ্য মার্চে তাদের মিডিয়া ৪৫ মিনিটের একটি রেকর্ডেড ভিডিও প্রকাশ করে। ভিডিও বার্তায় তাদের কিলিং গ্রুপের মুখপাত্র আবু আল হাসান চুড়ান্ত বিজয় অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত ধৈর্য্য ধারনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। ভিডিও বার্তায় অনেক কথার মধ্যে ইসলামিক স্টেট অনুসারীদের কাফেরদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অব্যাহত রাখার আহ্বান ছিলো। এই ভিডিও বার্তায় তিনি নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের প্রার্থনারত মুসল্লীদের হত্যার ব্যাপারে কুম্ভিরাশ্রু বর্ষণরত পশ্চিমা নেতাদের দায়ী করেন। তিনি ইসলামিক স্টেট যোদ্ধাদের মসজিদ হত্যাকান্ডের প্রতিশোধ নেয়া উচিত বলেও আহ্বান জানান।

 

মার্চের শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে ইসলামিক স্টেটের পতন ঘটে। তারপরও ইসলামিক স্টেট একটি নি:শেষিত শক্তি সেকথা এখনও কেউ জোর দিয়ে বলছেনা। তবে শ্রীলঙ্কার তিনটি চার্চে এবং তিনটি হোটেলে সন্ত্রাসী হামলার সাথে ইসলামিক স্টেট সরাসরি জড়িত একথাও এখনও প্রমানিত নয়। কারন এই হামলায় ইসলামিক স্টেটের সরাসরি অংশগ্রহনের কোনো এভিডেন্স এখনও নেই।

 

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন এদেশের গোয়েন্দা সংস্থা তাঁকে যেভাবে বিবৃত করেছে তাতে ইসলামিক স্টেটের আদর্শগত লিংক এই হামলায় ছিলো। তাঁর মতে ইসলামিক স্টেটের একটি প্রচন্ড আদর্শগত প্রভাব শ্রীলঙ্কার এই হামলায় কাজ করেছে।

 

শুক্রবার পর্যন্ত শ্রীলংকান অথরিটি ৩৫৯ থেকে নামিয়ে ২৫৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। বোমের আঘাতে মানুষের দেহ ছিন্ন ভিন্ন থাকায় নিহতদের সঠিক পরিসংখ্যান করা সহজতর হচ্ছে না। লাশের আইডেন্টিটি নির্নয় করা অনেকটা চ্যালেন্জিং হয়েছে। সে কারনে এখনও পর্যন্ত নিহতদের কারেক্ট ফিগার পাওয়া যায়নি। তবে এখনও পর্যন্ত সকল সোর্সই সুইসাইড বোম্বিং এ ৯ জনের অংশগ্রহনের ব্যাপারটি নিশ্চিত করে যাচ্ছে।

 

বিশ্লেষকগনের চিন্তায় ছেদ পড়ে যায় যখন শ্রীলঙ্কায় জঘন্যতম হত্যাকাণ্ডে আইএস এর কতোখানি সংশ্লিষ্টতা রয়েছে তা’ নিরূপণ করতে যান। হামলার দু’দিন পরে ইসলামিক স্টেট হামলার দায় স্বীকার করেছে যা’ অতীতে কখনো ঘটেনি। যেকোনো জায়গায় হামলার পরপরই আইএস দায় স্বীকার করেছে সব সময়। এ ক্ষেত্রে তার ব্যত্যয় ঘটেছে এবং আইএস এর ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব।

 

যখন দু’দিন পর আইএস শ্রীলঙ্কা হামলার দায় স্বীকার করলো তখন আবার তাদের মিডিয়া উইং এ্যামাক হামলায় অংশগ্রহনকারী মুখোশধারী সুইসাইড বোম্বারদের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশিত করলো যেখানে তারা আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদীর প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করছিলো। এখানেও অসঙ্গতি রয়েছে। ইতোপূর্বে যতো সুইসাইড বোম্বার আক্রমনের পূর্বে ভিডিও প্রকাশ করেছে সেখানে কখনোই মুখোশ পরিহিত ছিলোনা। কারন তারা নিশ্চিত মৃত্যুকে আলিঙ্গন করতে যাচ্ছে; সুতরাং মৃত্যুর পূর্বে পরিচিতি প্রকাশ করায় কিছু যায় আসেনা।

 

অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর মিলিটারী এন্ড সিকিউরিটি ল’ এর ভিজিটিং প্রফেসর এবং টেররিজম এক্সপার্ট মি: ক্লাইভ উইলিয়াম শ্রীলঙ্কায় হামলায় আইএস এর ডাইরেক্ট জড়িত থাকার ব্যাপারে কনভিন্সড নন। তাঁর মতে দু’দিন পরে দায় স্বীকার করা এবং হামলার পূর্বে মুখোশ পরে ভিডিও প্রকাশ করা আইএস চরিত্রের সাথে মেলেনা।

 

তবে অনেকের কাছেই অনুমেয় যে এই হামলায় সিরিয়া ফেরত দু’একজন সুইসাইড বোম্বার হিসেবে অংশগ্রহন করে থাকতে পারে এবং তারা সিরিয়ায় অর্জিত স্কিলস বোম্ব তৈরীতে ব্যবহার করে থাকতে পারে।

 

আহমেদ আইলা পেনসিলভানিয়ার ডিসেলস্ ইউনিভার্সিটির হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের এসিসটেন্ট প্রফেসর এবং টার্কিশ ন্যাশনাল পুলিশের সাবেক কাউন্টার-টেররিজম অফিসার তিনি শ্রীলঙ্কা হামলায় আইএস এর সংশ্লিষ্টতায় সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। তবে তিনি বিশ্বাস করেন এই হামলায় অংশগ্রহনকারীরা সিরিয়া ফেরত শ্রীলঙ্কান মুসলমান এবং সিরিয়ায় অভিজ্ঞতা সন্চয়কারী।

 

আহমেদ আইলার মতে শ্রীলঙ্কান এ্যাটাকের এ্যালার্মিং দিকটি হচ্ছে শ্রীলঙ্কান অথরিটির কাছে হামলার অন্তত দশ দিন পূর্বে হামলা সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য ছিলো। সুনির্দিষ্টভাবে ওয়ার্নিং ছিলো উগ্রপন্থী গ্রুপ ন্যাশনাল তাওহীদ জামাত নেতা মোহাম্মাদ জাহারান পরিকল্পিত সুইসাইড এ্যাটাক করতে যাচ্ছে। কিন্তু তারা এই তথ্যের ওপর গুরুত্ব দেয়নি।

 

এরকম অভূতপূর্ব তথ্যসম্বলিত কোনো আগাম বার্তা ইতোপূর্বে কোনো দেশের অথরিটি পায়নি। এমনকি শ্রীলঙ্কান অথরিটিকে সুনির্দিষ্টভাবে বলা হয়েছে যে তাদের ক্যাথলিক চার্চ এবং ইন্ডিয়ান হাইকমিশন আক্রমনের লক্ষ্যবস্তু। এমনকি আক্রমনে অংশগ্রহনকারীদের নাম, এ্যাড্রেস এবং টেলিফোন নাম্বার পর্যন্ত সরবরাহ করা হয়েছিলো। শ্রীলঙ্কান গোয়েন্দা সংস্থা এই তথ্যে কোনো গুরুত্ব না দিয়ে ২৫৩ জন নীরিহ সাধারন মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিলো।

 

শ্রীলঙ্কা হামলার একদিন পরেই তুরস্কের গালিপলিতে এ্যানজাক ডে-তে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের হাজার হাজার মানুষ প্রতিবছর যেখানে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে নিহতদের স্মরণে মিলিত হয়ে থাকেন সেখানে আক্রমন ঠেকাতে গোয়েন্দা তথ্যের আগাম ব্যবহার করে একজন সিরিয়ান নাগরিক যে আক্রমনের প্লট তৈরী করেছিলো তাকে এ্যারেস্ট করে আক্রমন ঠেকিয়ে দেয়। প্রফেসর আহমেদ আইলার মতে আইএস খালিফাতে নি:শেষ হয়ে গেছে এই ভেবে নিশ্চিন্ত থাকার কোনো কারন নেই।

 

আইলা আরো বলেন আমরা আইএস এর বিরুদ্ধে জয়লাভ করেছি এটি সত্য; কিন্তু তার অর্থ এই নয় যে আমরা সবকিছু জয় করতে পেরেছি। কারন এই যুদ্ধ একটি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে যা’ কখনোই শেষ হয়না। তাঁর মতে 9/11 এর পর আল-কায়দার উত্থানে অনুমান করা হয়েছিলো তাদের ৪০০ শ’ এর মতো স্বশস্ত্র যোদ্ধা ছিলো। আর এখন ১৮ বছর পর মনে করা হচ্ছে আল-কায়দার স্বশস্ত্র যোদ্ধার সংখ্যা রয়েছে ২০০,০০০ লক্ষের বেশী। এতে কি প্রমানিত হয় যে আল-কায়দার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়লাভ করা গেছে? একই সাথে প্রশ্ন আসে আইএস এর বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমরা জয়ী হয়েছি?

 

আইএস এর আনুষ্ঠানিকভাবে এবছরের মার্চে পরাজয়ের প্রাক্কালে কিলিং গ্রুপের মুখপাত্র আবু আল-হাসানের আহ্বান প্রনিধানযোগ্য। তিনি অনুসারীদের ধৈর্য্য ধারনের আহ্বান জানিয়েছেন। আল-কায়দা 9/11 এর পর থেকে শুধু ধৈর্য্য বিনিয়োগ করে এবং আইএস থেকে দূরত্ব বজায় রেখে এবং তাদের শিরচ্ছেদের নিন্দা জ্ঞাপন করে তাদের স্বশস্ত্র যোদ্ধার সংখ্যা ২ লক্ষে উন্নীত করেছে। ওসামা বিন লাদেনের ছেলে হামজা শক্ত হাতে আল-কায়দার হাল ধরেছে। খুব শীঘ্রই আল-কায়দা বিশ্বময় অস্থির পরিবেশ তৈরী করতে পারে।

 

সম্প্রতি আমেরিকা আল-কায়দার সম্ভাব্য নেতা হামজা বিন লাদেনের তথ্য প্রদানে এক মিলিয়ন ডলার পুরষ্কার ঘোষনা করেছে।

 

অপর দিকে প্রফেসর আহমেদ আইলার মতে দশ সহাস্রাধিক আইএস ফাইটার লিবিয়া, টার্কি, ইরাক সিরিয়ার দূরান্চলে পালিয়ে আছে। তার অর্থ হামলার আশঙ্কা বর্তমান। প্রত্যেকটি দেশের উচিত হবে গোয়েন্দা সার্ভিসকে তৎপর রাখা এবং আইএস এর সংশ্লিষ্টতার ওপর কড়া দৃষ্টি রাখা। খলিফাতে শেষ হলেও তার সমর্থকরা এবং বিশ্বাসীরা নানান জায়গায় ছড়িয়ে রয়েছে। এবং এই আশঙ্কা সব সময়ের জন্য বর্তমান রয়েছে।

 

ইস্টার সানডে-তে শ্রীলঙ্কার ক্যাথলিক চার্চে অভিনব হামলা এবং ২৫৩ জনকে হত্যা করা ঘটনার শেষ নয়; বরং শুরু।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT