Main Menu

উঁচু তলার বেয়াদব অফিসার আর নিচু তলার টাকাওয়ালা পিয়ন একই শ্রেণীর!

অযোগ্যদের হাতে যখন অনেক টাকা থাকে তখন তারা ভাবতে শুরু করে যোগ্যতা এবং যোগ্য ব্যক্তি দুটোই টাকা দিয়ে কেনা যায়। আশ্চর্জজনকভাবে তাদের এই ভাবনা অনেকক্ষেত্রে সত্যিও হয়ে যায়। আমি এক পিয়নকে চিনতাম, যার ঢাকায় দুটো বাড়ি আছে, ছেলে একটাকে কানাডায় পড়াশোনা করায়, তিনি এই চাকরিটাও পেয়েছিলেন টাকার বিনিময়েই। বাড়ি দুটো যে সৎ উপার্জনে হয়নি তাতে কোন সন্দেহ নেই।

একেকটা রিক্সাওয়ালা যেমন পুরো দেশ কথায় কিনে নিতে পারেন, সেই পিয়নের ভাব ছিল এমন যে তিনি টাকা দিয়ে পুরো অফিসটাই কিনে নিতে পারেন। বসেরা তার বস নয় বরং তিনিই বসদের বস। গ্রাম গঞ্জ থেকে আসা ভার্সিটি পড়ুয়া ছেলেরা হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা , আর তিনি স্বল্প লেখাপড়া জানা, বাপের অনেক আছে তাই লেখাপড়ার প্রয়োজন হয়নি তার, টাকার জোড়েই চাকরি পেয়েছেন, বাড়ি আছে, গাড়ি হবে, ছেলে বিদেশে পড়ে তার নাগাল আর পায় কে?

নিজ জেলার গ্রামের ছেলেপুলেরা তাকে স্যার ডাকে। অফিসে একটা শার্ট ইন করে পরলে কি হবে? বাড়ি যাবার সময় তার স্যুট বুট লাগে। যেহেতু সে পিয়ন, বসের দেখা পেতে গেলে আমজনতার আগে তার চেহারা দেখতে হয়। এই সুযোগে সে যার থেকে বেশি হাতিয়ে নিতে পারে তাকেই পাঠায় বসের রুমে। হাবভাব এমন যে, রুমের ভেতরে থাকা ওই চেয়ারে বসতে আমার ভালো লাগেনা তাই বসিনা, দাঁড়ায়া থাকতেই আরাম।

তাই বলে নিজের হক ছাড়ি না। এইযে একজন পিয়নের এই ভাবনা এটার জন্য কারা দায়ী? যিনি টাকা খেয়ে তার চাকরিটা নিশ্চিত করেছেন সেই বস দায়ি, গ্রামের দরিদ্র শিক্ষিত যারা টিউশন করে, ঘাম ঝড়িয়ে লেখাপড়া করতে অনাগ্রহী, শুধুমাত্র তোষামোদের বিনিময়ে যদি কিছু বাড়তি টাকা পাওয়া যায় তারা দায়ী, উপর মহলের লবিং এ চাকরি তাই উনাকে কিছু বললে নিজের চাকরি থাকবেনা ভাবা বসদের নীরবতা দায়ী। ফলশ্রুতিতে পিয়ন হয় বস, বস হয় পিয়ন।

আবার কিছু অফিসার আছেন, পিয়নকে মানুষ বলেই মনে করেন না৷ তার ভালো খেতে নেই, তার ভালো পরতে নেই, তার ছেলেমেয়ের শিক্ষিত হতে নেই। তুমি পিয়ন, তোমার চৌদ্দগোষ্টি পিয়ন হয়েই থাকো। একজন পঞ্চাশ বছরের বৃদ্ধকে পদমর্যাদার খাতিরে ত্রিশ বছরের অফিসার আপনি করে বলতে চান না, তিনি পিয়ন, তার আপনি ডাক শুনার অধিকার নেই। অনেক অফিসার আছেন, পিয়নের সন্তানের ভালো ফলাফলের উপলক্ষে আনা মিষ্টি খেতে চান না, তিনি বস, তিনি কেন পিয়নের খুশিতে খুশি হবেন? উচু তলার বেয়াদব অফিসার আর নিচু তলার টাকা ওয়ালা পিয়ন একই মনে হয় আমার কাছে।

এদের মাঝে বিপদে পড়ে সেই তৃতীয় পক্ষ, যারা তার অধীনস্থ পিয়নকে যথাযথ সম্মান দিতে চান, যারা নিজের যোগ্যতা বুঝে বসদের সম্মান করতে চান। শুধু অফিশিয়াল নয়, সার্বিকভাবেই এই দুই বেয়াদব শ্রেণী রয়েছে যাদের জন্য সভ্য, ভদ্র তৃতীয় শ্রেণী সারাক্ষণ কি করবে? কি করা উচিত? এই ভেবে দ্বিধান্বিত থাকেন। এর একটা সমাধান জরুরি। খুব জরুরি। একই শ্রেণীতে থাকা সকল মানুষের সুযোগ, সম্মান একই হোক।

 
 
 
 

ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT