Main Menu

বাংলাদেশের গ্যাস সম্পদে চোখ যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার

বাংলাদেশের গ্যাসক্ষেত্রে বিনিয়োগ নিয়ে বেশ জোরেশোরে মাঠে নেমেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের একজন উপসহকারী মন্ত্রী ও রাষ্ট্রদূত দেখা করেছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সাথে। পরে তারা জানান, গ্যাস ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র।

দেশে এখন যে গ্যাস পাওয়া যায়, তার ৫০ ভাগেরও বেশি উত্তোলন করে মার্কিন প্রতিষ্ঠান শেভরন। গত বছরে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ থেকে যেতে চাইলেও পরে নতুন বিনিয়োগের ঘোষণা দেয়।

জাতীয় নির্বাচনের আগে মার্কিন প্রতিষ্ঠান জি-ই এর সাথে ৩ হাজার ৬০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার এলএনজি ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য একটি সমঝোতাও সই হয়। দেশে কার্যকর একমাত্র ভাসমান এলএনজি টার্মিনালটিও নির্মাণ করেছে একটি মার্কিন প্রতিষ্ঠান।

এবার দেশটির দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী মন্ত্রি, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে দেখা করে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে আরও বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা করেন।

পরে এনিয়ে সফররত মার্কিন উপসহকারী মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ এখন বেশ ভালো। বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, গ্যাসক্ষেত্রে মার্কিন বিনিয়োগ নিয়ে বিশেষ আগ্রহ আছে তাদের। এর আগে স্থল ও জলভাগে গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনে রাশিয়ার কাছ থেকেও একটি প্রস্তাব পেয়েছেন তারা।

এদিকে স্থলভাগে বেশ কয়েকটি গ্যাস কূপ খনন করেছে রাশিয়ান জায়ান্ট গ্যাজপ্রোম। প্রতিষ্ঠানটির  নজর এখন স্থল থেকে সমুদ্রবক্ষ। এক প্রশ্নে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্থল ও জলভাগে পুরো গ্যাসক্ষেত্রে বিনিয়োগ প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া। স্থলভাগে গ্যাসের প্রমাণিত মজুদ শেষ হয়ে যাবে আগামী ১৫ বছরের মধ্যে। তাই সমুদ্রবক্ষে গ্যাস অনুসন্ধানে জোর দিতে চাইছে সরকার।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT