Main Menu

শাট-ডাউন স্থগিতকরনের ঘোষনা ট্রাম্পকে মেরুদন্ডহীন প্রেসিডেন্টে পরিনত করেছে!

মোঃ শফিকুল আলম: অনেকটা নি:শর্ত এবং ডেমোক্র্যাট-মেজরিটি কংগ্রেসের সাথে ডীল ছাড়াই ইউএস গভর্নমেন্ট-শাট-ডাউন স্থগিতকরনের ঘোষনা ট্রাম্পকে মেরুদন্ডহীন প্রেসিডেন্টে পরিনত করেছে!

 

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে দীর্ঘতম সময়ের গভর্নমেন্ট-শাট-ডাউন বা অচলাবস্থা গত শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তুলে নিয়ে গভর্নমেন্ট পূণ:রায় চালু করার ঘোষনা করলেন।

 

তবে এটি জনাব ট্রাম্প্রের নিছক তর্জন-গর্জন ছিলোনা। এমনকি শাট-ডাউন তুলে নেয়াকে তাঁর মেক্সিকো বর্ডার ওয়াল ফান্ডিং এর দাবী ত্যাগ করাও বোঝায়না।

 

কিন্তু পশ্চিমা উন্নত বিশ্বের পরাক্রমশালী প্রেসিডেন্টের অবমাননাকর আত্মসমর্পন এবং অসহায়ত্ব স্পষ্টত: পরিষ্ফুটিত হয়েছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

 

পুরো ৩৫ দিনের শাট-ডাউন চলাকালীন মি: ট্রাম্প, তাঁর সহযোগীগন এবং কংগ্রেসে তাঁর সমর্থকগন বেশ জোর দিয়ে প্রতিদিন ঘোষনা করছিলেন যে ওয়াল-ফান্ডিং-ডীল নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত শাট-ডাউন চলবে এবং গভর্নমেন্ট রি-ওপেন করা হবেনা। কিন্তু তাঁর জনপ্রিয়তার ধ্বসের মুখে এবং বেশ কয়েকটি বিমানবন্দরে অচলাবস্থার মুখে তাঁকে শাট-ডাউন তুলে নেয়ার ঘোষনা দিতে হলো।

 

ট্রাম্প হয়তো তাঁর ওভারকোট পরিহিতাবস্থায় ক্যাপিটাল হিলের রোজ গার্ডেনে শাট-ডাউন তুলে নেয়ার ঘোষনা দিতে উপস্থিত হয়েছিলেন; কিন্তু তাঁর মনের ভেতরকার শূন্যতায় নিশ্চয়ই তিনি নিজেকে পরিচ্ছদহীন অনুভব করেছিলেন! শাট-ডাউন তুলে নেয়ার ঘোষনা দেয়ার পরপরই মার্কিন জনগন হয়তো একে অপরকে প্রশ্ন করছিলেন, “এসবের মানে কি?”

 

৩৫ দিনের শাট-ডাউনের পর মি: ট্রাম্প শূন্য হাতে মার্কিন জনগনের সামনে দাঁড়ালেন। কিছুই পেলেননা জনপ্রিয়তায় কমতি ছাড়া।নিশিচয়ই তাঁর কট্টরপন্থী শিবিরেও ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে এবং তাঁর সুনাম অনেকটা ছেঁড়া কাগজের টুকরোয় পরিনত হয়েছে! অবশ্য শুরুতেই শাট-ডাউন ডিলিং-এ ট্রাম্পের অদক্ষতা ছিলো। ডিসেম্বরে যখন ডেমোক্র্যাট হাউজ স্পীকার পেলোসির সাথে সভা করলেন এবং পেলোসি ওয়াল-ফান্ডিং এর প্রতিশ্রুতি দিতে অস্বীকৃতি জানালে মি: ট্রাম্প শাট-ডাউনের সকল দায়-দায়িত্ব স্বয়ং গ্রহন করে গর্বিত হবে বলে জানালেন। ট্রাম্পের এই রিজিডিটি আজ তাঁকে অপমান সহ্য করতে বাধ্য করেছে। ফলে রিপাবলিক্যানরা আজ পরিস্থিতি অনেকটা কানাগলিতে ধাবমান হলেও ডেমোক্র্যাট কংগ্রেসম্যানদের ব্লেইম দিতে পারছেননা। এমনকি জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ট্রাম্পের ভাষনও অ্যামেরিকানদের কনভিন্স করতে পারেনি যে মেক্সিকোর সাথে বর্ডার সমস্যার সমাধান একমাত্র দু’দেশের মধ্যে ওয়াল তৈরী করা।

 

অপরদিকে যখন ট্রাম্পের শাট-ডাউন তুলে নেয়ার ঘোষনা তাঁর ব্যক্তিত্বকে খাঁটো করলো; তখন পেলোসির ওয়াল-ফান্ডিং এ্যাপরুভ্ না করার সিদ্ধান্ত যে জাস্টিফাইড ছিলো তা’ই প্রমানিত করে। অথচ ক’দিন পূর্বে ডেমোক্র্য্যাট কংগ্রেসম্যানরা অপেক্ষাকৃত তরুন কংগ্রেসম্যান দ্বারা তাঁকে রিপ্লেস করার কথা ভাবছিলেন। এমনকি পেলোসিকে ডেমোক্র্যাটরা বোঝা হিসেবে ভাবছিলেন!

 

শাট-ডাউনের প্রত্যেকটি স্তরে পেলোসির দৃঢ়তা আজ তাঁকে অনেক উচ্চ মাত্রায় পৌঁছে দিয়েছে। এমনকি যখন ট্রাম্প স্টেট অব ইউনিয়ন অ্যাড্রেস করলেননা তখন পেলোসি বললেন এটি জাতির সাথে ট্রাম্পের ধাপ্পাবাজি মাত্র।

 

শেষ পর্যন্ত ট্রাম্প বাধ্য হলেন শাট-ডাউন উইথড্র করতে। গভর্নমেন্ট তিন সপ্তাহের জন্য ওপেন। ট্রাম্পের জন্য এই তিন সপ্তাহ একটি বড় সময়। এই সময়ের মধ্যে তাঁর নিজের তৈরী করা ক্ষত নিজেকে সারাতে হবে। তাঁর উচিত হবে এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহন কংগ্রেসের ওপর ছেঁড়ে দেয়া এবং সেখান থেকে তাঁর পক্ষে সিদ্ধান্ত গ্রহন করে কংগ্রেস এবং নিজেকে বিজয়ী করতে হবে। অন্যথায় তাঁর একমাত্র ক্ষমতা রয়েছে ইমারজেন্সী ঘোষনা করে ওয়াল তৈরী করা। সেক্ষেত্রে তিনি নিশ্চিত তাৎক্ষণিকভাবে আদালতে চ্যালেন্জের মুখে পড়বেন। প্রাথমিকভাবে আদালতের ইনজাংশন জারী করার সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে তাঁর ইমার্জেন্সী দিয়ে যে শেষ রক্ষা হবে তা’ নিশ্চিত করে বলা যায়না।

 

স্বাভাবিক রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে মেক্সিকো বর্ডারে ওয়াল তৈরী করে যদি ইমিগ্রেশন সমস্যার সমাধান করতে হয় তবে বাইপার্টিজান সিদ্ধান্তে উপনীত হতে হবে। কিন্তু রাজনৈতিক পরিস্থিতি অবশ্যই স্বাভাবিক নেই এবং যৌথ সিদ্ধান্ত গ্রহনের প্রক্রিয়া অনেকটা দূরে রয়েছে।

 

তবে ডেমোক্র্যাটরা কংগ্রেসে মেজরিটি পাওয়ার পর যদি সবকিছুতে বিরোধিতার জন্য বিরোধিতা করে তা’ যথাযথ হবেনা। ট্রাম্প মনে করছেন দৃশ্যত: মেক্সিকো বর্ডার ওয়াল দিয়ে আটকে দিলে অবাধে মানুষ এবং ড্রাগের চালান ব্যাহত করা যাবে।ডেমোক্র্যাটদের কার্যকর বিকল্প বলতে হবে অন্যথায় তারা যে বেশ কৌশলে এক তরফা রাজনৈতক খেলা খেলছে তা’ প্রমানিত হবে।

 

২০১৬ এর প্রসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে ট্রাম্পের ক্যাম্পেইন টীমের সদস্যদের সাথে রাশিয়ান কর্তৃপক্ষের নির্বাচন ম্যানুপুলেশনে যোগসাজস খুঁজে দেখার জন্য বিশেষ কৌঁসুলী রবার্ট মুলার খুব শীঘ্রই প্রতিবেদন জমা দিবেন। তাঁর মতে ট্রাম্পের রাজনৈতিক অপব্যবহার এখন ক্রাইম হিসেবে না দেখলেও পরবর্তী সময়ে একই ধরনের অপরাধে আবার অভিযুক্ত হতে পারেন। প্রশ্ন উঠেছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কি আইনের উর্ধ্বে? মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান নিয়েও বেশ আলোচনা হচ্ছে।

 

অপরদিকে রাশিয়া কর্তৃক হিলারী ক্লিনটনের ইমেইল হ্যাকিং এবং ট্রাম্পের বিশ্বস্ত রজার স্টোনের জড়িত থাকার ব্যাপারে মিথ্যা তথ্য প্রদানের জন্য তিনি অভিযুক্ত হচ্ছেন। নিজেকে trickster হিসেবে পরিচয় দিতে পছন্দকারী স্টোনকে FBI গত শুক্রবার প্রত্যুষ্যে তার ফ্লোরিডাস্থ বাসভবন থেকে গ্রেফতার করেছে। যদিও তিনি তার গ্রেফতারকে রাজনৈতিক বলে অভিহিত করেছেন। তাকে আদালতে উপস্থাপন করা হলে বাইরে দর্শকরা চিৎকার করে বলছিলো, ‘lock him up.’ আদালতে স্টোন নিজেকে নির্দোষ দাবী করেন। স্টোন বলেন, “ কোনো পরিস্থিতিতে আমি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মিথ্যা সাক্ষ্য দিবোনা অথবা আমার ওপর চাপ কমাতে মিথ্যা তৈরী করবোনা।”

 

রবার্ট মুলারের তদন্তে স্টোন হচ্ছে ষষ্ঠ অভিযুক্ত ব্যক্তি যারা ট্রাম্পের নির্বাচন ক্যাম্পেইন সহযোগী ছিলেন এবং সর্বোপরি ৩৪ জনকে মুলার অভিযুক্ত করেছেন। দু’বছরকাল চলা তদন্তে ট্রাম্প সহযোগীদের রাশিয়ান নির্বাচন ম্যানুপুলেশেন টীম সদস্যদের সাথে অসংখ্যবার যোগাযোগের প্রমান মিলেছে এবং পরবর্তীতে তারা তাদের যোগাযোগের প্রমান নষ্ট করার চেষ্টা করেছেন তদন্তে তারও প্রমান রয়েছে।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT