Main Menu

বিজয় উল্লাসে  সিডনিতে 'মিউচুয়াল হোমস বাংলা মেলা'  অনুষ্ঠিত

প্রায় কয়েক হাজার মানুষের সমাগমের মধ্য দিয়ে গতকাল রবিবার ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের দিনে সিডনির ওয়ালী  পার্কে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো সিডনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের অন্যতম প্রাণের উৎসব মিউচুয়াল হোমস বাংলা মেলা ২০১৮।

রবিবার ছিল সিডনিতে ছুটির দিন  । রৌদ্রজ্জ্বল ভোর আর ক্রমশ উষ্ণতা বৃদ্ধির জানান দিয়ে দিনের সূচনায়ই মনে হয়েছিলো দিনটি উপভোগ্য হবে। হয়েছিলোও তাই। প্রত্যাশিত রোদ আর মনমাতানো হাওয়ায় দেহ জুড়ানোর পাশাপাশি বাংলাদেশি সংস্কৃতির এক অনন্য আয়োজন মিউচুয়াল হোমস বাংলা মেলায় ঢল নেমেছিলো নানা বয়সের প্রবাসীদের।
দুপুর থেকেই সিডনির বাংলাদেশি অধ্যুষিত লাকেম্বা ওয়ালী পার্ক ও আশে পাশের  প্রায় সবগুলো রাস্তা প্রফুল্ল জনস্রোত এসে ধাবিত হচ্ছিলো মেলার কেন্দ্রস্থল ওয়ালী পার্কে।  শাড়ি, কামিজ আর পায়জামা-পাঞ্জাবি পরে বাংলাদেশিরা ছুটছেন তারা মেলা প্রাঙ্গণের দিকে।ওয়ালী পার্কের   কাছে পৌঁছাতেই কানে আসে বাংলা গানের সূর। সন্ধ্যার আগে ওয়ালী পার্ক  যেন লোকে লোকারণ্য। সুবিশাল মাঠে  বসানো সারি সারি স্টল। ঝালমুড়ি, চানাচুর, ফুচকা-চটপটি ও বিরিয়ানি, দেশীয় স্টাইলের কাবাব, মোগলাই পরোটা, আখের রসসহ স্টলগুলোতে নানা বাঙালি খাবারের পসরা সাজিয়ে বসেছেন সিডনির বাংলাদেশিরা।

মেলা প্রাঙ্গণে বসে  মূখরোচক খাবার খাচ্ছিলেন অনেকে। তারা সবাই প্রায় এক বাক্য বলেন,  দেশীয় সংস্কৃতির সঙ্গে সন্তানদেরকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার এক বড় সুযোগ এই মেলা। বিদেশ বিভুঁইয়ে আপন সংস্কৃতিকে ধারণ করে একটা দিন কাটানো যায় এই মেলায়।

ভিন্ন ভাষা ও সংস্কৃতির মানুষের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো।   দুপুর সাড়ে চারটা  সামহা, আদি, ফুয়াদ এবং সংগীতার সঞ্চালনায় এবং আলিয়া ও রুহাবের পবিত্র কোরআন তেলোওয়াতের মধ্য দিয়ে মেলার মঞ্চের  কার্যক্রম শুরু হয় । বাংলাদেশ ও  অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সংগীতের পর শুরু হয়  স্থানীয় শিশু কিশোর ও  শিল্পীদের সংগীতের মূর্ছনা।  নিয়মিত বিরতি দিয়ে পরিবেশিত হয় নৃত্য, ফোক সংগীত, ব্যান্ড সংগীত। বাড়তি আকর্ষণ হিসাবে ছিল বাংলাদেশের প্রয়াত বরেণ্য সংগীতশিল্পীদের স্মরণে তাদেরই রেখে যাওয়া কিছু অমর গান নিয়ে সাজানো অনুষ্ঠান । এই অনুষ্ঠানের নাম দেওয়া হয়েছে, Tribute to Lost Legends বা 'হারানো কিংবদন্তির প্রতি শ্রদ্ধাঘ্য'। ।  এতে অংশ নেই সিডনি ছাড়া ও ক্যানবেরা থেকে প্রবাসী জনপ্রিয় সব বাংলাদেশী ব্যান্ডদল ।

ছিল ছোট্টসোনামণিদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, “এসো বিজয় রঙে আঁকি” বাংলা মেলার চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা,  তাতে প্রায় শতাধিক প্রতিযোগী অংশগ্রহন করে । সেরা চিত্রাঙ্কনকারীদের পুরস্কারের পাশাপাশি অংশগ্রহনকারি সকল শিশুদেরকে দেওয়া হয় সনদপত্র ও পুরুস্কার। ছিল বড়দের  জন্য উন্মুক্ত পাবলিক আর্ট। মেলা-উৎসবের অন্যতম আকর্ষন   “এসো বিজয় সাজে সাজি”,।
সন্ধ্যার কিছু আগে মঞ্চে উপস্হিত হন  নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যর মাল্টি কালচারাল মিনিষ্টার  ‎‎র‌্যা উইলিয়াম, বিরোধী দলীয় উপনেতা প্যানি শার্প এমপি, সাবেক সিনেটর লি রিয়ানান, ওটলির এমপি মার্ক কুরী, ক্যান্টাবেরী ব্যাংকসটাউনের মেয়র কার্ল আসফুর, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও মাল্টি কালচারাল সোসাইটি ক্যাম্বেলটাউের চেয়ারপারসন  এনাম হক,  কাউন্সিলর মাসুদ চৌধুরী, কাউন্সিলর শাহে জামান টিটো, ব্যাংকসের ফেডারেল লেবার প্রার্থী ক্রিস গ্যামবিয়ান, প্রবীন কমিউনিটি নেতা দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ। এই সময় আয়োজক সংগঠন আমরা বাংলাদেশীর পক্ষে শিবলী আব্দুল্লাহ, ইব্রাহিম খলিল মাসুদ সহ অন্যান্য সদস্যরা উপস্হিত ছিলেন।


 

আমন্ত্রিত অতিথিদের উপস্হিতে গত বছরের মতো এবার ও তিনজন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধাকে 'বাংলা মেলা বিজয় সম্মাননা' প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অনন্য অবদানের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়াত রাজনীতিবিদ ফ্রেডা ব্রাউন এবং প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা  কাজী জাকির হাসানকে মরণোত্তর সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়া সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন, বাংলা সঙ্গীত, সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে বিশেষ অবদানের জন্য স্বাধীন বাংলার বেতার কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক আপেল মাহমুদকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

মেলায়  গ্রাম বাংলার আদলে বিভিন্ন কোণায় ছিল ভিন্ন ভিন্ন বিনোদনের আয়োজন। গত বছরের মত এবারের মেলার দুই প্রান্তে ছিল দুটি মঞ্চ। প্রথম মঞ্চের আনুষ্ঠানিক অনুষ্ঠান মালার পাশাপাশি দ্বিতীয় মঞ্চে লোকগান, কবিতা, গল্প, কৌতুক পরিবেশন করা হয়। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশগ্রহন করে বাংলা হাব, কৃষ্টি, ঐক্যতান, কিশলয় কচিকাঁচা, ধূমকেতু, তান্ত্রিক, কার্নিশ, সৃষ্টি সহ আরো অনেক সংগঠন।

'এসো বিজয় উল্লাসে মাতি' এই স্লোগান নিয়ে  ২০১৩ সালে বাংলা মেলা শুরু হয়। এবার ছিল বাংলামেলার পঞ্চম আয়োজন। প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসেই এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়। তাই সিডনি প্রবাসীদের কাছে বিজয় উৎসব মানে বাংলামেলা। গত বছরের মত এবার মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসাবে ছিল অস্ট্রেলিয়ার স্বনামধন্য গৃহ নির্মান প্রতিষ্ঠান মিউচুয়াল হোমস।
 


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT