Main Menu

ফলো-আপ খাশোগী হত্যাকান্ড

মোঃ শফিকুল আলম: হত্যাকারী দলের মধ্যে যেমন সৌদি রয়ালগার্ড সদস্য, সৌদি মূল গোয়েন্দা-সংস্থার সিনিয়র সদস্য, রাষ্ট্র প্রধানের সাধারন গোয়েন্দা সদস্য এবং অস্ট্রেলিয়ায় বিশেষ (ফরেনসিক মেডসিন) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত একজন ডাক্তার ছিলেন।

টার্কিশ পুলিশের বরাতে জানা যায় খাশোগি হত্যাকারী দল দু’টি বিশেষ বিমানে ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে পৌঁছায় এবং হত্যাক্রম শেষ করেই সৌদি আরবে ফিরে যায়।সৌদি আরবের প্রধান গোয়েন্দা সংস্থার একজন উর্ধ্বতন অফিসার পুরো অপারেশনে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

অপরদিকে কনসাল জেনারেল (অডিও রেকর্ড অনুযায়ী) হত্যাকারীদের তাঁর অফিস থেকে বের হয়ে যেতে বললেন এবং তাঁকে সমস্যায় ফেলা হবে তা’ও অডিও রেকর্ডে রয়েছে। কনসাল জেনারেলকে হত্যাকারী দলের এক সদস্য ভীতি প্রদর্শন করে বলছেন দেশে ফিরে বাস করতে চাইলে মুখ বন্ধ রাখো; অডিও রেকর্ডে তা’ও রয়েছে। কনসাল জেনারেল সৌদি ফেরার সাথে সাথে তাঁকে বরখাস্ত করে যুবরাজ সালমান দূরত্ব বজায় রাখছেন এবং তাঁর চলাফেরায় দিক-নির্দেশনা আরোপ করা হয়েছে।

অডিও রেকর্ডটি তুরস্কের সরকারী এবং মেইন স্ট্রীম গনমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

যুবরাজ সালমান খাশোগি হত্যাকাণ্ড থেকে নিজেকে দূরে রাখতে চাইছেন। তিনি বলছেন অসাধু কোনো এজেন্সী করে থাকতে পারে।

আল জাজিরার রিপোর্ট অনুযায়ী মাত্র সাত মিনিটে সৌদি ডাক্তার সালাহ এবং তার দল খাশোগিকে খণ্ড বিখণ্ড করে।সৌদি ডাক্তার সালাহ আল-তুবাজি মূলত: প্রথমে জামাল খাশোগি’র হাতের সবগুলো আঙ্গুল কেটে ফেলে এবং হাড্ডি কাটার করাত (ইলেকট্রিক) ব্যবহার করে জীবিতাবস্থায় শরীরের বিভিন্ন অংগ বিচ্ছিন্ন করেন। ডা: সালাহ তখন মাইক্রোফোন ব্যবহার করে উচ্চস্বরে মিউজিক শুনছিলেন এবং অন্যদেরকে তার মতো মিউজিক শোনার উপদেশ দিচ্ছিলেন।

ইউএস গোয়েন্দা সংস্থা ক্রমশ: এই জঘন্য এবং নিন্দনীয় হত্যাকাণ্ডে যুবরাজ সালমানের সম্পৃক্ততার সম্ভাবনার কথা বলছে। যদিও অডিও টেপটি এখনও তাদের হস্তগত হয়নি।তবে মার্কিন এবং ইউরোপিয়ান গোয়েন্দারা এখনও প্রিন্সের প্রত্যক্ষ যোগাযোগের কোনো প্রমান পায়নি।তারা এও ভাবছেন প্রিন্স সালমান কি খাশোগিকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন না ধরে সৌদি আরবে আনতে চেয়েছিলেন।

অবশ্য গোয়েন্দাদের কাছে প্রিন্স সালমানের জড়তি থাকার সরাসরি এভিডেন্স না মিললেও circumstantial evidences বলে দেয় যে প্রিন্স এই নারকীয় খেলার সাথে জড়িত।মার্কিন গোয়েন্দারা এই কিলিং মিশনে অংশগ্রহননকারী প্রিন্স সালমানের সিকিউরিটি সদস্যদের তথ্য পেয়ে গেছেন এবং সৌদি কর্মকর্তারা খাশোগিকে capture করার ব্যাপারে যে পূর্বালোচনা করেছে তা’ intercept করতে পেরেছেন।যেখানে সৌদি সিকিউরিটি ফোর্স সম্পূর্ণ প্রিন্স সালমানের অধীনে ন্যাস্ত সেখানে সিকিউরিটি ফোর্সের কোনো সদস্য প্রিন্সের জানার বাইরে যে এই অপারেশনে অংশগ্রহন করেনি তা’ সহজেই অনুমেয়।

তবে বিশ্লেষকগন বলছেন ট্রাম এই ক্ষেত্রে গোয়েন্দাদের classified assessment গ্রহন নাও করতে পারেন যেহেতু আমেরিকার স্বার্থ বিনষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।ট্রাম্প বরং প্রিন্স সালমান যেভাবে বলেছেন কোনো অসাধু এজেন্সী উদ্দেশ্যমূলকভাবে করে থাকতে পারে সেই ধারায় মার্কিন গোয়েন্দাদের push করতে পারেন।

ইউএস সেক্রেটারী অব দি স্টেট মি: মাইকের কাছে প্রিন্স সালমান তাঁর জড়িত না থাকার কখা বলার পরই মূলত: টার্কিশ মিডিয়ায় অডিও টেপটি leaked হয় এবং তখনই ট্রাম্প রেকর্ডেড এভিডেন্স টার্কিশ কর্তৃপক্ষের কাছে চেয়েছেন।তিনি FBI দিয়ে তদন্ত করাবেন কি-না জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, “I’m not going to tell you.”
যদিও মি: মাইকের রিয়াদ সফরের পর পরই ট্রাম্প বললেন প্রিন্সকে unfairly অভিযুক্ত করা হচ্ছে।

ইউএস সেক্রেটারী অব দি স্টেট মি: মাইকের রিয়াদে সফর এই পরিস্থিতি কতটা সামাল দিতে পারবে তা’ নিয়ে এখন সাধারনেও সন্দেহ রয়েছে। কুটনৈতিকভাবে এই সফরকে মার্কিন সাবেক কুটনীতিকরা disaster বলে অভিহিত করেছে।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT