Main Menu

তাসকিনের পিতৃত্ব এবং আমাদের নোংরামী...

'সবার উদ্দেশ্যে ১ টা কথা বলি, কেউ মনে কিছু নিয়েন না, আমার বিয়ে হইসে ১১ মাস, দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ থেকে এসেই বিয়ে করলাম ৩১ অক্টোবর এবং বিয়ের বয়স হলো ১১ মাস, সাউথ আফ্রিকা ছিলাম ৪৮ দিন, সব মিলিয়ে হল ১২ মাস ১৮ দিন। আমার পুত্র সন্তান হইলো ৯ মাস ২৭ দিনে। যদি বিয়ের আগে আমার স্ত্রী প্রেগন্যান্ট হইতো তাহলে আমার বাচ্চা বিয়ের ৬ মাস এর মধ্যেই দুনিয়াতে থাকতো। যাই হোক যাদের ভুল ধারণা ছিল আমাদের প্রতি তাদের জন্যে এই মেসেজটি। ধন্যবাদ।'

চিন্তা করুন কতোটা বিব্রত আর কষ্ট পেয়ে বাধ্য হয়ে নিরুপায় Taskin এমন লেখা লিখতে পারেন!!! যেখানে সদ্য বাবা হওয়ার আনন্দে তার ডুবে থাকার কথা সেখানে কিনা তাকে দিতে হচ্ছে পুত্রের বৈধতার সার্টিফিকেট ?

শনিবার বাবা হয়েছেন তাসকিন। স্ত্রী আর বাচ্চার সাথে তিনি হাস্যোজ্জ্বল ছবি পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। এরপর থেকেই ফেসবুক গরম নেতিবাচক সমালোচনায়।

কারো মতে,

১। তাসকিন এত তাড়াতাড়ি বাবা হলেন কেন? কিভাবে?

২। বিয়ের আগেই নিশ্চয়েই তাসকিনের স্ত্রী প্রেগন্যান্ট ছিল।

একজনের কমেন্ট দেখে গা রিতীমত গুলিয়ে উঠেছে 'এটা তাসকিনের বাচ্চা নয়। তার বাচ্চা ৬ মাস আগেই হয়েছে। এটা আরেক জনের বাচ্চা। আসল বাচ্চা লুকিয়ে রেখেছে। কিছুদিন পর বের করবে।'

একটা বাচ্চা জন্মগ্রহন করেছে অল্প সময় হল। ভালো মন্দ বোঝার বয়সটুকুও হয়নি। এর মধ্যেই আমরা তাকে দুনিয়ার চারপাশের নোংরা জগৎ সম্পর্কে ধারনা দিয়ে দিয়েছি। এই বাচ্চা একদিন বড় হবে, চিন্তা করুন তখন নোংরামিগুলো তার মনে কি প্রভাব পড়বে। ব্যাপারটা যদি আমার আপনার বেলায় ঘটত?

তাসকিন কোন অপরাধ করেননি। বিয়ে করেছেন দীর্ঘদিনের বান্ধবীকে। দাম্পত্য জীবনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় বাবা হয়েছেন। তবু কেন এই নোংরামি?

গত ফুটবল বিশ্বকাপের সময় তাসকিনের সাক্ষাৎকার নিয়েছিলাম। কথা প্রসঙ্গে নতুন অতিথির কথা বলার সময়ে বাবা হতে যাওয়া তাসকিনের চোখে মুখে আনন্দের যে আভা দেখেছিলাম তার কোন তুলনা হয়না। বারবার তাসকিনের সেদিনের মুখটা চোখে ভাসছে।

বাবা হওয়ার পর, পুত্রের সাথে হাস্যোজ্জ্বল তাসকিনের ছবিটা অনেকবার দেখলাম। এই মানুষটা টিমে নেই। মনের কষ্ট চেপে রেখে টিমে ফেরার লড়াইয়ে ব্যস্ত। নিজের কষ্ট সাময়িকভাবে হয়ত ভুলেছেন পুত্রের মুখের দিকে তাকিয়ে। আর পিতা পুত্রের মধুর সম্পর্কটাকে আমরা নোংরামিতে ভরে তুলছি!!!

Humayun Ahmed এর কথাটা জানেন তো? " পৃথিবীতে অনেক খারাপ মানুষ আছে একটাও খারাপ বাবা নেই "।

দর্শক হিসেবে, খেলোয়াড় তাসকিনের পারফরম্যান্স নিয়ে আপনি গঠনমূলক সমালোচনা করতেই পারেন। কিন্তু তিনি কি খাবেন, কখন বিয়ে করবেন, কখন বাবা হবেন এগুলো নির্ধারন করে দেয়ার অধিকার কি আমার, আপনার আছে? তিনি তারকা বলেই কি তাকে আমাদের এসব অত্যাচার সহ্য করতে হবে? তার পিতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলব? তাসকিনের ওপর কিসের এত রাগ যে শোধ তুলতে আক্রমন করতে হবে তার সদ্যজাত পুত্রকে?

টিম জিতলে আমাদের গর্বে বুক ভরে যায়। অথচ তামিম খারাপ খেললে তার স্ত্রীকে ফোনে গালি দিয়ে আমরা শোধ তুলি। বারবার বোঝানোর ট্রাই করি মুশফিক অসুন্দরী বয়স্ক মেয়েকে বিয়ে করেছে। চটি পেজে লাইক দেয়া ব্যক্তিও সাকিবের পেজে গিয়ে জ্ঞান দেয় সাকিবের স্ত্রী শিশির কেন পর্দা করেনা?

আয়নায় ভালোভাবে নিজেকে দেখেছেন? আপনি ১০০ ভাগ পারফেক্ট তো? আর তাসকিনের বাচ্চা নিয়ে প্রশ্ন তোলার আগে নিশ্চিৎ হয়েছেন তো আপনার বাচ্চা নিয়েও ভবিষ্যতে কেউ এভাবে প্রশ্ন তুলবেনা?

অপ্রিয় সত্য এটাই যে, এদেশে তারকা হওয়াই মহা পাপ। সাকিব, তামিম, তাসকিনরা তাই মহা পাপি।

বি. দ্র. খোলা কলামের সাথে প্রতিষ্ঠানের কোনো সম্পর্ক নেই এটা লেখকের সম্পুর্ন ব্যক্তিগত মতামত।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT