Main Menu

নদী ভাঙন প্রতিরোধের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে অস্ট্রেলিয়া বসবাসকারী শরীয়তপুরবাসীর স্মারকলিপি

বাংলাদেশের শরীয়তপুরে পদ্মা নদীর তীব্র ভাঙ্গনে তীরবর্তী নড়িয়া উপজেলায় শত শত ঘরবাড়ি ও বড় বড় স্থাপনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। দেশের মত অস্ট্রেলিয়া বসবাসকারী শরীয়তপুরবাসী আতঙ্কিত। তারা আজ  ২৩ আগষ্ট রবিবার অষ্ট্রেলিয়া প্রবাসী শরীয়তপুরবাসী জেলা ফোরাম ব্যানারে  বাংলাদেশ হাই কমিশন, ক্যানবেরার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। শরীয়তপুরবাসী পক্ষ থেকে কৃষিবিদ ডঃ রফিকউদ্দিন , ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ আলী শিকদার, সেলিম শাহনুরী, বিশিষ্ট আইনজীবি নিম তালুকদার সহ বেশ কয়েকজন প্রবাসী সিডনির ক্যাম্পসীতে অস্হায়ী কনুসলার ক্যাম্পে হাই কমিশনের প্রধান সচিব নাজমা আক্তারের হাতে স্মারকলিপিটি তুলে দেন। 

স্মারকলিপিতে তারা বলেন, পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে নড়িয়া উপজেলার চরআত্রা এবং নওপাড়া ইউনিয়ন দুটি কয়েক বছর পূর্বেই পদ্মার ভাংঙ্গনে বিলীন হয়ে গিয়েছে। পদ্মা নদীর এই ভাংগন গত প্রায় দুই যুগ আগে হতে শুরু হয়ে তা বর্তমানে চরম আকার ধারন করে গত ৩/৪ শত বছরেরর প্রাচীন জনপদ নড়িয়া এবং জাজিরার গ্রামের পর গ্রাম ক্রমান্বয়ে গ্রাস করে নিচ্ছে। 
নদীর ভাঙ্গন একটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ বলে প্রাথমিকভাবে বিবেচিত হলেও সাইক্লোন বা টর্নেডোর ন্যায় অপ্রতিরোধ্য নহে। সাইক্লোন বা টর্নেডো হঠাৎ আঘাত করে চলে যায় কিন্তু নদী ভাঙ্গনে আস্তে আস্তে শুরু হয়ে ক্রমাগত চলতে থাকে। নদী ভাংগন প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলেও আধুনিক টেকনোলজি ব্যবহার করে বিশ্বের অনেক দেশ নদী ভাঙ্গন  প্রতিরোধ করেছে। উদাহরন হিসেবে চীনের কথা বলা যায়। এক সময়ের চীনের দুঃখ বলা হত 'হুআংহু নদী' কে আর এখন এই নদী চীনের সম্পদ হিসেবে বিবেচিত।  কিন্ত আজ অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হয়, সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়/বিভাগের সময়মত নদী শাসনের কাজ সম্পন্ন না করা ও অত্র এলাকার রাজনীতিবীদদের দীর্ঘ দিনের অবহেলা এবং উদাসীনতার কারনে পদ্মা নদীর ভাংঙ্গনে আমাদের কষ্টার্জিত সকল সম্পদ, পূর্ব পুরুষের ভিটেমাটি, আবাদী জমিসহ সবকিছু নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে সম্পূর্ন উপজেলা দুটি আজ অস্হিত্ব হীন হওয়ার পথে। এই নদী ভাঙ্গনে দুটি উপজেলার প্রায় দুই হাজার পরিবার বসতভিটাহীন হয়ে পরেছে। আবাদীজমিসহ হাটবাজার নদীতে ভেঙ্গে যাওয়ায় গ্রামীন অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব পরায় অনেক পরিবার কর্মহীন হয়ে অতি কষ্টে দিনাতিপাত করছে। এই অসহায় পরিবারগুলীর সার্বিক পুনর্বাসনকল্পে সরকারী খাস জমিতে বসতভিটা নির্মান করে নুতনভাবে জীবন শুরু করার জন্য সহজ শর্তে ও নাম মাত্র সুদে প্রতিটি পরিবারকে দীর্ঘ মেয়াদী দশলক্ষ টাকা ঋন প্রদান করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছি। 

 স্মারকলিপিতে অবিলম্বে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলাকে পদ্মার করাল গ্রাস হতে রক্ষাকল্পে পদ্মার দক্ষিন পাড়ে ১২ মাইল দীর্ঘ বেড়ীবাধ নির্মাণের কাজ জরুরী ভিত্তিতে আরম্ভ এবং পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্হ পরিবারগুলিকে পুনর্বাসনের জোর  দাবী জানান। 
 


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT