Main Menu

মন্ত্রী গেলেন, ফ্যানও গেল

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ট্রেনযাত্রা উপলক্ষে সৈয়দপুর রেলস্টেশনে ঝোলানো হয়েছিল ১০টি ফ্যান। কিন্তু পথসভার পর গত রবিবার সেগুলো খুলে ফেলা হয়। ছবিটি গত শুক্রবার তোলা।

মন্ত্রী এলেন, ফ্যান এলো। মন্ত্রী গেলেন, ফ্যানও গেল। ঘটনাটি সৈয়দপুর রেলস্টেশনের। এত দিন ওই রেলস্টেশনের প্লাটফর্মে কোনো বৈদ্যুতিক পাখা (ফ্যান) ছিল না। মন্ত্রীর আগমনে জুটেছিল ১০টি ফ্যান। কিন্তু বিধিবাম! সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উত্তরবঙ্গে নির্বাচনী ট্রেনযাত্রা শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ওই ফ্যানগুলো খুলে নেওয়া হয়েছে। গত রবিবার বিকেলে এ ঘটনায় ট্রেনযাত্রীরা প্রশ্ন তুলেছে—তাহলে মন্ত্রীকে দেখানোর জন্যই কি প্লাটফর্মে বৈদ্যুতিক পাখাগুলো লাগানো হয়েছিল?

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নেতাদের নিয়ে গত ৮ সেপ্টেম্বর ট্রেনযোগে ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চল সফরে আসেন। ট্রেনযোগে মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে উত্তরবঙ্গের অন্যান্য রেলস্টেশনের মতো নীলফামারীর সৈয়দপুর স্টেশনটিও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। আর রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মের যাত্রী ছাউনিতে লাগানো হয় ১০টি নতুন সিলিং ফ্যান। মন্ত্রীর আগমনে রেলস্টেশনের যাত্রী ছাউনিতে ফ্যান লাগানোর ফলে যাত্রীদের কষ্ট লাঘব হয়েছিল। গত রবিবার রাতে সৈয়দপুর স্টেশনে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্লাটফর্মের সিলিং ফ্যানগুলো নেই। এ নিয়ে কথা হলে স্টেশনে অবস্থানরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ট্রেনযাত্রী আক্ষেপ করে বলে, যাত্রীদের কষ্ট লাঘবে নয়, ফ্যানগুলো লাগানো হয়েছিল মন্ত্রীকে দেখাতে, খুশি করতে।

নীলফামারীর সৈয়দপুরে সম্প্রতি অত্যাধুনিক রেলস্টেশন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু প্লাটফর্মে ছিল না বৈদ্যুতিক পাখা। তাই সাধারণ যাত্রীরা গরমের মধ্যে স্টেশনের প্লাটফর্মে বসে কিংবা দাঁড়িয়ে ট্রেনের অপেক্ষায় থেকে কষ্ট করে আসছিল। এ অবস্থায় সৈয়দপুরের স্টেশন মাস্টার বারবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানালেও তাঁরা কর্ণপাত করেননি। কিন্তু মন্ত্রীর ট্রেনযাত্রাকে সামনে রেখে গত ৫ সেপ্টেম্বর স্টেশনের প্লাটফর্মের যাত্রী ছাউনিতে ১০টি বৈদ্যুতিক পাখা লাগানো হয়। দেশের বৃহত্তম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার বিভাগীয় বৈদ্যুতিক বিভাগ থেকে ওই ফ্যানগুলো লাগানো হয়েছিল বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে সিনিয়র স্টেশন মাস্টার মো. শওকত আলী বলেন, ‘রেলওয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের কাছ থেকে আমি ফ্যানগুলো কাগজে-কলমে বুঝে নিই। অথচ পরে আমাকে না জানিয়ে ফ্যানগুলো আবার খুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT